চৌদ্দগ্রামে গৃহবধূকে নির্যাতন

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা)প্রতিনিধি::
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পিটিয়ে মৃত ভেবে বাড়ির বাইরে ফেলে রাখে স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি। এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর পুলিশী তদন্তে সামাজিকভাবে মিমাংসার আশ্বাস দিলেও তার কোনো সমাধান হয়নি, উল্টো বিভিন্ন মামলা দিয়ে গৃহবধূর পরিবারকে হয়রানির হুমকি দেয়া হচ্ছে।
জানা গেছে, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কিং শ্রীপুর গ্রামের মৃত হাফেজ আহম্মেদের মেয়ে জোবায়দা সুলতানাকে একই গ্রামের আবুল খায়ের মিয়ার ছেলে খায়রুল হাসান ২০১০ সালের ২ মার্চ বিয়ে করে। বিয়ের পর কয়েক মাস পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে সুলতানার উপর চালাতে থাকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন। ৩০ আগষ্ট রাতে সুলতানার সঞ্চিত ৩০ হাজার টাকা স্বামী খায়রুল হাসান ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এনিয়ে প্রতিবাদ করলে খায়রুল হাসানের পিতা আবুল খায়ের, মা আঞ্জুমানারা ভানুসহ অন্যান্যরা সুলতানাকে নির্যাতন করে। তাদের নির্যাতনে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে মৃত ভেবে তাকে বাড়ির বাইরে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় সুলতানা বাদী হয়ে ৩১ আগষ্ট ঈদের দিন স্বামী খায়রুল হাসানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল হাসান জানান, বিষয়টি সামাজিকভাবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply