সরাইলে দুই ইউনিয়নে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে পুলিশের ওসি ও দারোগা সহ আহত দেড় শতাধিক

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে পূর্ব শত্রুতার জের, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও নারী সংক্রান্ত বিষয়কে কেন্দ্র করে দুই ইউনিয়নের লোকদের মাঝে সংঘর্ষে বাঁধে। সংঘর্ষে সরাইল থানার ওসি ও দারোগাসহ দেড় শতাধিক নারী-পুরুষ আহত হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলার পাকশিমুল ও অরুয়াইল ইউনিয়নের মধ্যে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন জানান, অতিসম্প্রতি অরুয়াইল কলেজ মাঠে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে উভয় ইউনিয়নের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহত হয় শতাধিক লোক। এ ঘটনার রেশ না কাটতেই গত ২৭ আগস্ট শনিবার রাতে নারী সংক্রান্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাকশিমুল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়েরের সাথে অরুয়াইল ইউপি ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুর রহমানের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে দু’জনই আহত হয়। এ ঘটনায় জুবায়েরের বিরুদ্ধে সরাইল থানায় ধর্ষণ ও মারামারির অভিযোগে একাধিক মামলা দায়ের করেন প্রতিপক্ষের লোকজন। অপরদিকে জুবায়েরের চাচা হারুন মিয়া বাদী হয়ে শফিকুর রহমানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে গতকাল শনিবার পাকশিমুল ইউনিয়নের লোকজন হাজী শিশু মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ও অরুয়াইলের লোকজন কলেজ মাঠে সভা ডাকেন। সভা শেষে বেলা ৩টায় উভয় ইউনিয়নের প্রায় ৭ সহস্্রাধিক দাঙ্গাবাজ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে রক্ষক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে অনেক দাঙ্গাবাজ অবৈধ অস্ত্র ব্যবহারের পাশাপাশি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এসময় দুই ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অরুয়াইল ও পাকশিমুল বাজারের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। একসময় দাঙ্গাবাজরা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা ইটপাটকেল ছুঁড়ে। সংঘর্ষ ৪ ঘন্টা সময় অতিবাহিত হওয়া পর্যন্ত সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জহিরুল ইসলাম খান ও অরুয়াইল পুলিশ ফাঁড়ির দারোগা জাহাঙ্গীর, এলাকার নারী-পুরুষ ও শিশু সহ দেড় শতাধিক লোক আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ব্যাপক টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ব্যবহার করে। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেলাল উদ্দিন ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মুনিরুজ্জামান দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেন।





Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply