ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ছুরিকাঘাতে প্রকাশ্যে যুবক খুন :এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

কচুয়া প্রতিনিধি :

নিহত মহসিন, ইনসেটে তার ফাইল ফটো
চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার রহিমানগর বাজারে ইভটিজিংকারীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় ইভটিজিংকারীরা প্রতিবাদকারীকে ছুরিকাঘাতে প্রকাশ্যে খুন করে। রবিবার রাতে রহিমানগর কলেজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কচুয়া থানায় ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা হত্যা দায়ের করা হয়েছে। যার নং- ৩১, তাং- ২৯/০৮/২০১১ ইং।

জানা গেছে, উপজেলার শাহারপাড় গ্রামের অধিবাসী আমির হোসেনের পুত্র মহসিন (২২) তার চাচাতো বোন নাজমা আক্তার (২৬) কে ইভটিজিংকারীর হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে বলির শিকার হয়।

নিহতের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার দিন রাতে নিহতের চাচাতো বোন নাজমা ঈদের বাজার করে শাহার দীঘির পাড় চেয়ারম্যানের বাড়ী ফেরার পথে রহিমানগর কলেজ গেইট আসলে গোহট গ্রামের অধিবাসী অটোবাইক ড্রাইভার কামাল হোসেন নাজমার হাত ধরে টানা হেচড়া শুরু করে। এ সময় তার সাথে থাকা মহসিন বাঁধা দেয় এবং তাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। এতে ড্রাইভার কামাল মহসিনের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং পার্শ্ববর্তী ঝুট বাবুলের গ্রীলের ওয়ার্কশপের ভেতর হতে ড্রাইভার কামাল ছোরা নিয়ে মহসিনের বুকের দুই পাশে ছুরিকাঘাত করলে মহসিন সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটে পড়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেন। ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা কচুয়া কালীয়াপাড়া সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে কচুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং ব্যবহৃত ছোড়াটি উদ্ধার করা হয়।

মহসিনের লাশ নিয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল

সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত মহসিনের লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিল।
কচুয়া উপজেলার রহিমানগর বাজারে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত শাহারপাড় গ্রামের অধিবাসী মহসিনের লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। গতকাল সোমবার রাতে মহসিনের লাশ ময়না তদন্ত শেষে রহিমানগর বাজারে পৌঁছলে এলাকার শত শত বিক্ষুব্ধ জনতা নিহত মহসিনের খুনীদের গ্রেফতারের দাবীতে তার লাশ নিয়ে রহিমানগর বাজারের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে প্রতিবাদ মিছিল করে। পরে রাত পৌনে ৮ টার দিকে রহিমানগর বিএবি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজার পূর্বে প্রতিবাদ সভায় এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন- শাহারপাড় গ্রামের অধিবাসী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ফারুকী, এম.আর মিজান মোল্লা। প্রতিবাদ সভায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ফারুকী বলেন- স্থানীয় সন্ত্রাসী কামাল হোসেনের ছুরিকাঘাতে নিরীহ মহসিনকে নিহত করায় অটোরিক্সা চালক কামাল হোসেন, জুট বাবুলসহ তার সাঙ্গ-পাঙ্গদের আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবী জানান। অন্যথায় তিনি আরো বলেন- স্থানীয় জনগণকে সাথে নিয়ে রহিমানগর বাজারে অবরোধসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করবেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ, ইউপি চেয়ারম্যান আমির হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আঃ মান্নান, আওয়ামীলীগ নেতা সেলিম হোসেন, কচুয়া থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ দিলদার আজাদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কবির হোসেন, রহিমানগর ডিগ্রী কলেজের সাবেক জিএস রাসেদুল হাসান চৌধুরী সুমন প্রমূখ।

জানাজা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন- মাওলানা মেজবাহ্উল ইসলাম। জানাজা শেষে তার লাশ গ্রামের বাড়ী শাহারপাড়ে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

প্রসঙ্গত: রবিবার রাতে রহিমানগর বাজারে নিহত মহসিনের চাচাতো বোন নাজমা আক্তারকে ইভটিজিং এ প্রতিবাদ করায় তাকে ছুরিকাঘাত করে নির্মমভাবে নিহত করা হয়।





Check Also

যে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে : বিএনপি

চাঁদপুর প্রতিনিধি :– চাঁদপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সাধারণ সভায় বক্তারা বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম ...

Leave a Reply