তিতাসে গৃহবধূ গণধর্ষণের শিকার :পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি

নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস :

তিতাসে গণধর্ষণের শিকার রিনা আক্তারকে দেখছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম, তিতাস থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোঃ নবীর হোসেন ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুন্সি মুজিবুর রহমান।
কুমিলা জেলার তিতাস উপজেলার জগতপুর গ্রামে মিয়া কাজীর মেয়ে গৃহবধূ রিনা আক্তার (১৮) বখাটে কর্তৃক ধর্ষিত হয়েছে। মামলা-মোকদ্দমা না করার জন্য ধর্ষিতার পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ধর্ষিতার মাতা তাজমহন জানান, গত ১ আগষ্ট রাতে নিজ বাড়ী থেকে রিনা নিখোঁজ হলে অনেক খোঁজাখুজির পর ৩ এপ্রিল পরিত্যাক্ত একটি চকের বাড়িতে অজ্ঞান অবস্থায় পাওয়া যায়। তখন তার শরীর দিয়ে রক্তপাত হচ্ছিল। তখন স্থানীয় লোকদের সহযোগিতায় তাকে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ৬ আগষ্ট শনিবার সন্ধ্যায় বিষয়টি স্থানীয়দের মাঝে জানাজানি হলে একটি চক্র ৭ আগষ্ট রবিবার সকালে কৌশলে রিনাকে হাসপাতাল থেকে নিয়ে যায়। বিষয়টি গোটা তিতাস উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসনের টনক নড়ে। বর্তমানে রিনার রক্তপাত হওয়ায় তাকে গতকাল রবিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় পূর্ণরায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম, তিতাস থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোঃ নবীর হোসেন ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুন্সি মুজিবুর রহমান রিনার সাথে কথা বললে রিনা গণধর্ষণের কথা স্বীকার করেন। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নবীর হোসেন জানান, জগতপুর গ্রামের মাইনুল ও শাহনেওয়াজসহ আরো ২-৩ জন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে বলে রিনা স্বীকার করেছে। রিনার মাতা তাজমহন আরো জানান, উক্ত ঘটনা কাউকে না জানানোর জন্য আমাদের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। তাই প্রাণের ভয়ে আমরা কাউকে বলতে সাহস করিনি।





Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply