নাঙ্গলকোটে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ খুন

জামাল উদ্দিন স্বপন:
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে যৌতুকের দাবিতে স্বামী এবং শ্বশুর কর্তৃক এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, সোমবার রাতে উপজেলার বাঙ্গড্ডা ইউপির নসরতপুর গ্রামে। এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নাঙ্গলকোটের রায়কোট ইউপির তুলাতুলি-চাঁন্দপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে সাজেদা আক্তারের সাথে ৩ বছর পূর্বে একই উপজেলার বাঙ্গড্ডা ইউপির নসরতপুর গ্রামের জিতু মিয়ার ছেলে রিক্সাচালক সোহাগ মিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে সোহাগ মিয়া যৌতুকের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে সাজেদা আক্তারকে (২৪) নির্যাতন করে আসছিলেন। এ নিয়ে সাজেদা আক্তার কুমিল্লায় মানবাধিকার সংস্থার স্থানীয় অফিসে সোহাগ মিয়ার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ১ বছর পূর্বে সোহাগ মিয়া আরেকটি বিয়ে করেন। দ্বিতীয় বিয়ে নিয়েও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সব সময় পারিবারিক কলহ লেগেই থাকতো। পরে উভয় পক্ষের আত্মীয়-স্বজন সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসার উদ্যোগ নেন। কিন্তু সাজোদার স্বামী এবং শ্বশুর বার-বার সালিশ বৈঠকের তারিখ দিয়েও সালিশ বৈঠকে উপস্থিত থাকেন না। এক পর্যায়ে তারা ৫হাজার টাকা জমা দিয়ে সালিশ বৈঠকে উপস্থিত থাকার অঙ্গীকার করেন। তারপরও তারা সালিশ বৈঠকে বসেননি। গত ৩১ জুলাই সাজেদার চাচী শ্বাশুড়ী রেনু বেগম মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সাজেদাকে নসরতপুর নিয়ে আসেন। গত ২ আগষ্ট মঙ্গলবার দুপুরে সাজেদার শ্বশুর বাড়ি থেকে তার বাপের বাড়িতে ফোন করে সাজেদার বিষ পানে মারা যাওয়ার কথা জানান। সাজেদার বাবা সহ আত্মীয়স্বজন নসরতপুর এসে সাজেদা বিষ পানে মারা যাবার কোন আলামত না দেখে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সাজেদাকে হত্যার পর থেকে তার স্বামী সোহাগ এবং শ্বশুর জিতু মিয়া পলাতক রয়েছে। এ ব্যাপারে সাজেদার বাবা দেলোয়ার হোসেন থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। নাঙ্গলকোট থানার তদন্ত কর্মকর্তা মফজল খাঁন জানান, সাজেদা বিষ পানে মারা যাবার কোন আলামত পাওয়া যায়নি।





Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply