কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে রোটারী ক্লাবের বৃক্ষরোপণ

এম আহসান হাবীব, কুবি প্রতিনিধি :

বৃহস্পতিবার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে রোটারী ক্লাব অব কুমিল্লার সহযোগিতায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি-২০১১ উদ্যাপন শুরু হয়েছে। কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আমির হোসেন খান। বৃক্ষরোপনপূর্ব আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার গোপাল চন্দ্র সেন। সভাপতিত্ব করেন রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের প্রভোস্ট ড. এ. কে. এম রায়হান উদ্দিন। বিশ্ববিদ্যালয় এস্টেট শাখার আয়োজনে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন রোটারিয়ান গর্ভণর পিপি রোটারীয়ান আনোয়ার হোসেন এবং ডেপুটি গর্ভণর রোটারীয়ান ড. তৃপ্তিষ চন্দ্র ঘোষ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে রোটারী ক্লাব কুমিল্লা’র ভাইস প্রেসিডেন্ট রোটারীয়ান অরুন কান্তি সাহা, সেক্রেটারি রোটারীয়ান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ হুমায়ুন কবীর, রোটারীয়ান পিপি পাপড়ি বোস, রোটারীয়ান মোঃ আতিকুল ইসলাম, রোটারীয়ান পিপি অনুপ রঞ্জন ঘোষ, ট্রেজারার মেহারনিজপুন নেহার চৌধুরী, ডিরেক্টর কবির হোসেন ভূইয়া, মোঃ ইমামুজ্জামান চৌধুরী, সামাজিক বনবিভাগের কর্মকর্তা মোঃ মোখলেছুর রহমানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা এবং ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. আমির হোসেন খান বলেন, গাছপালা মানুষ ও প্রকৃতির অকৃত্রিম বন্ধু। এই বন্ধুকে বাঁচাতে হবে। একটি দেশের মোট আয়তনের ২০ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশ বৃক্ষের প্রয়োজন হলেও আমাদের রয়েছে মাত্র সাড়ে ১১ শতাংশ। বিস্তীর্ণ খালি জমি নেই যেখানে বনায়ন করা সম্ভব; তাই বাসাবাড়ি, প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য যেকোন খালি জায়গায় গাছ লাগিয়ে এই সংকট উপশম করা সবার দায়িত্ব। দেশে সবুজ বিপ্লব গড়ে তুলতে হবে। তিনি সকলকে এ অভিযানে অংশগ্রহণের জন্য উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, শুধু বৃক্ষরোপণ নয় পাশাপাশি এর পরিচর্যাও করতে হবে। বৃক্ষের গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে তিনি বলেন, এই বৃক্ষ উষ্ণতা থেকে রক্ষা করে আবহাওয়াকে শীতল করে, বন্যা, খরা, ঝড়কে নিয়ন্ত্রন করে সর্বোপরি অক্সিজেন প্রদান করে পরিবেশকে রক্ষা করে। প্রধানমন্ত্রীর বৃক্ষরোপণ নির্দেশনা অনুসরণ করে সবাইকে একটি করে ফলজ, বনজ ও ্ঔষধি গাছ লাগানোর আহ্বান জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি গোপাল চন্দ্র সেন বলেন, বৃক্ষ আমাদের পরম বন্ধু। ফল-ফুল সৌন্দর্যবর্ধনসহ নানাভাবে বৃক্ষ আমাদের উপকার করে থাকে। তিনি এ অভিযানকে সফল করার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে কুমিল্লা রোটারী ক্লাবের রোটারীয়ানগণ বলেন, বৃক্ষ আমাদের অস্তিত্বের জন্যই জরুরী। সুস্থ ও সুন্দরভাবে বাঁচতে হলে বৃক্ষরোপণের কোনো বিকল্প নেই। পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণ সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করতে হবে। কুমিল্লা রোটারী ক্লাব বিগত তিন বছর ধরে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃক্ষরোপণে সহযোগিতা করে আসছে। এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বক্তারা আশ্বস্ত করেন ।




Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply