মদ্যপ পুলিশ কর্মকর্তার মাতলামি

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ –
আখাউড়ার ধরখার ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা এস আই শওকত হোসেন মদ্যপ অবস্থায় সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচরণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাতে গ্রামের বাড়ির সামনের রাসত্মায় দাঁড়িয়ে থাকা সাংবাদিক মাসুক হৃদয়ের সাথে তিনি ওই আচরণ করেন।

জানাগেছে, শুক্রবার রাতে ফোকাস বাংলার ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি মাসুক হৃদয় ধরখার ইউনিয়নের রাণীখারের নিজ বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এসময় গ্যাসে চালিত একটি অটোরিকশায় করে আরো তিনজন পুলিশের সঙ্গে এসআই শওকত রুটিগ্রাম থেকে আসছিলেন। তিনি সেখানে রাতে পালাগানের আসর থেকে ফিরছিলেন।

বাড়ির সামনে সাংবাদিককে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে তিনি সামনে যান। অকথ্যভাষায় পরিচয় জানতে চান। পরিচয় পাওয়ার পর ওই পুলিশ কর্মকর্তার মাতলামি আরো বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে তিনি মামলায় ফাঁসিয়ে দেখে নেয়ারও হুমকি দেন। হেলে ঢলে শরীরের ভার সামলে তিনি তেড়ে এসে বলতে থাকেন আপনার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে। আমি আপনাকে গ্রেপ্তার করবো। জানেন আমি কে! কি করতে পারি।

পুলিশ কর্মকর্তার এই মাতলামির খবর এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর স্থানীয় শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অসংখ্য সাধারণ মানুষ তাঁর অশোভন আচরণ ও মাতলামির শিকার বলেও জানাগেছে।

এই বিষয়ে সাংবাদিক মাসুক হৃদয়ের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ওই পুলিশ কর্মকর্তা তখন মাতাল ছিলেন। তিনি ঠিকমতো দাঁড়াতে পারছিলেন না। আমি পরিচয় দেয়ার পরও তিনি যে আচরণ করেছে তা অনাকাঙ্খিত। অপরাধ দমনকারীরা এমন অপরাধে জড়িয়ে থাকলে সাধারণ মানুষের আস্থার জায়গা যেমন সংকুচিত হচ্ছে তেমনি পুলিশের মতো একটি শৃঙ্খল বাহিনীর বদনামও রটছে।

কথা বলার জন্য অভিযুক্ত এসআই শওকতের মোবাইলে একাধিকবার কল করেও সংযোগ না পাওয়ায় তাঁর বক্তব্য জানা যায়নি।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply