কুমিল্লায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে এক সন্তানের জননীকে কেরোসিন ঢেলে হত্যা চেষ্টা

কুমিল্লা প্রতিনিধি :

1- নির্যাতনকারি স্বামী রুবেল, 2-নির্যাতিত গৃহবধু শিমুল
কুমিল্লার দক্ষিণ চর্থা থিরা পুকুর পাড় এলাকায় যৌতুকের দাবীতে এক সন্তানের জননীকে শারিরীক নির্যাতন করে কেরোসিন ঢেলে হত্যার চেষ্টা করেছে তার পাষন্ড স্বামী রুবেল ও শ্বশুড়বাড়ীর লোকজন। আহত গৃহবধু শিমুলকে কুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়। এ ব্যাপারে গত শনিবার রাতে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ চর্থা থিরা পুকুরপাড় এলাকার জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর মেয়ে শিমুল চৌধুরীর (২৪) সাথে একই এলাকার ছাদেক মিয়ার ছেলে রুবেল (২৮) এর সাথে গত ৪ বছর পুর্বে বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকেই বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবীতে স্বামী রুবেল, শাশুড়ী কুলসুম বেগম ও ননদ সালমা আক্তার বাবা ছাদেক মিয়া গৃহবধু শিমুলের উপর শারিরীক ও মানুষিকভাবে নির্যাতন চালায়। শত নির্যাতন সহ্য করেও শিমুল তাদের দাম্পত্য জীবনের তিন বছরের সুবর্ণা নামের কণ্যা সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে স্বামীর সংসারে নিজেকে মানিয়ে নেয়। এরপর গত ৪ জুলাই সকাল বেলায় স্বামী রুবেল ও তার মা-বাবা ও বোন আবার ৫০ হাজার টাকা যৌতুক আনার জন্য শিমুলকে বলে । শিমুল এতে অপারগতা প্রকাশ করলে বিকেল ৩টায় শিমুলের উপর চলে অমানষিক বর্বরোচিত নির্যাতন। তারা তার শরীরের বিভিন্ন অংশে লাথি,কিল, ঘুষি ও লাঠি দিয়ে এলোপাতারী পিটিয়ে শরীরের ভিবিন্ন স্থানে বেদনাদায়ক নীলাফুলা জখম করে। তাদের কিল-ঘুষিতে শিমুলের বাম চোখে রক্ত জমাট বাধে ও ফুলে গিয়ে চোখটি প্রায় নষ্ট হওয়ার পথে। এক সময় নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে শিমুল চিৎকারের চেষ্টা করে, এসময় শাশুড়ী কুলসুম বেগম শিমুলের গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করে। শিমুল তাদের কাছে প্রাণ ভিক্ষা চেয়ে পায়ে জড়িয়ে ধরে। এতেও রক্ষা পায়নি গ্রহবধু শিমুল। এক সময় পাষন্ড স্বামী শিমুলের গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন জ্বালাতে উদ্যত হলে শিমুল চিৎকার দিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে উঠোনে এসে অচেতন হয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে শিমুলের বড় ভাই সিরাজ, স্থানীয় বিচারক দুলাল মিয়া, আব্দুস সালাম, জাহাঙ্গীর মিয়া , জাকির মিয়া, বদরুল হাসান রাব্বু, , ইয়াসিন, কাউসার ও ইকরাম মিয়াগনদের সহায়তায় শিমুলকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে কুমেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। কুমেক হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে গত ১৫ জুলাই রাত পৌণে ৯টায় সামাজিক ভাবে এ বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য রুবেল মিয়ার বাড়ীতে এলাকার স্থানীয় গণ্যমাণ্য ব্যক্তিগণ বৈঠকে বসলে স্বামী রুবেল ও তার পরিবার যৌতুক ৫০ হাজার টাকা ছাড়া স্ত্রী শিমুলকে ঘরে তুলে নিবেনা বলে জানায়। এসময় এলাকার বিচারকগণ রুবেলকে বোঝাতে চেষ্টা করলে রুবেল তাদের অপমান করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল রুবেলের পক্ষপাতিত্ব নিয়ে কাজ করছে,যার ফলে সামাজিক বিচারকেও সে হেয় প্রতিপন্ন করছে। অবশেষে সামাজিভাবে কোন সমাধান না হওয়ায় গত ১৬ জুলাই রাতে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আসামি পক্ষের কেউ গ্রেফতার হয়নি।





Check Also

কুসিক নির্বাচন সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করার দাবি বিএনপির

সৌরভ মাহমুদ হারুন :– কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার ...

Leave a Reply