সরাইলে আইন শৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি ॥ ৭ মাসে ৬ খুন

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ-
সরাইলে ৭ মাসে ৬ জন খুন হয়েছে। এতে করে আইন শৃংখলা পরিস্থিতির মারাত্নক অবনতি হয়েছে। তুচ্ছ ঘটনা, নির্বাচনী সহিংসতা, পারিবারিক বিরোধ, আধিপত্য বিস্তার, পূর্ব শত্রম্নতা এবং সম্পত্তির বিরোধের জের ধরে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে।

সর্বশেষ ১১ জুলাই সরাইল উপজেলার শাহজাদাপুর এলাকায় তুচ্ছঘটনার জের ধরে প্রতিপক্ষের বেদড়ক পিটুনিতে ব্যবসায়ী যুবক সবুজ মিয়া (২৪) নিহত হয়। গত ১২ জুন সরাইল উপজেলায় ইউপি নির্বাচনের সহিংসতার জের ধরে সদর ইউনিয়নের কু্‌ট্টাপাড়া গ্রামে উপজেলা চেয়ারম্যান মো: রফিক উদ্দিন ঠাকুরের ছোট ভাই মো: আনিছ ঠাকুর (৪৮) প্রতিপক্ষের বলমের আঘাতে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এ সময় বিশুতারা গ্রামের মঙ্গল মিয়ার পুত্র লিলু মিয়া (৩০) দায়ের কুপে গুরুতর আহত হলে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২৪মে সরাইল পানিশ্বর ইউনিয়নের চাতাল শ্রমিক সর্দার মাজু মিয়াকে (৪৫) পিটিয়ে হত্যা করে এলাকার পুপুলার রাইছ মিলের মালিক আবদুর রওফের নেতৃত্বে তার চাতাল কলের শ্রমিকরা। সমপত্তির বিরোধের জের ধরে ২০ এপ্রিল উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নের কালিশিমুল গ্রামের পল্টুর বাড়ির মৃত শহীদ মিয়ার বড় ছেলে অহিদ মিয়া ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় সৎ ছোট ভাই দুদু মিয়াকে (১৯) গলা কেটে খুন করে। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে গত ১৯ মার্চ সরাইলের শাহবাজপুরে বৃদ্ধা মালেকা বেগম (৫৫) কে লাথি দিয়ে খুন করে প্রতিপক্ষের কুদ্দুস মিয়া। এছাড়াও সরাইলে প্রতিনিয়ত চুরি, ছিনতাই, সড়ক ডাকাতি, রমরমা মাদক ব্যবসার কারনে সামাজিক ও নৈতিক অবক্ষয়সহ আইন শৃংখলা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার অফিসার-ইনচার্জ মো : জহিরুল ইসলাম খানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে না পেয়ে সরাইল থানায় তার অফিসে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: হেলাল উদ্দিনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়নে পুলিশকে আরও সচেষ্ট হওয়া উচিত।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply