নাঙ্গলকোটে দালাল চক্র কর্তৃক আনছার কর্মী লাঞ্চিত

জামাল উদ্দিন স্বপন:
নাঙ্গলকোট-লাকসাম উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় আমদুয়ার নামক স্থানে দালাল চক্রের মূল হোতা, আনছার বিডিপির প্রধান ফজলুল হক ফজল দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় মেয়েদের নিয়ে যৌন হয়রানীসহ প্রতিতা বৃত্তি করে আসছে। জানা গেছে ফজলুল হক গত শুক্রবার ১৫ জুলাই রাত্র আনুমানিক ১১ ঘটিকার সময় আমদুয়ারে আনছার বিডিপির সদস্য, ভুলুয়াপাড়া গ্রামের শাহিদা (২৮) কে প্রেমিক রফিকের সঙ্গে বিবাহ দেয়ার নাম করে, নাঙ্গলকোটের কিনারা গ্রামের ড্রাইভার রফিক (৩২) কে ও একই আশা দিয়ে ফোনে ডেকে এনে ফজলের বাসাবাড়ী আমদুয়ারে উঠে। এক পর্যায়ে শাহিদা আক্তার বিয়ের জন্য রাজি থাকলেও রফিক তাতে সাড়া না দেওয়ায় এক পর্যায়ে ফজল হক বিভ্রান্তিতে পড়েন। রাত গভীর হয়ে যাওয়ায় এলাকার মানুষ এগিয়ে আসলে ঘটনা ফাঁস হয়ে যায়। উক্ত ঘটনার রহস্য উধঘাটনে ১৬ই জুলাই আমদুয়ারে ফজলুল হকের বাসা বাড়ীতে এক শালিস বসে। সালিশে নাঙ্গলকোটের মক্রবপুর ইউনিয়নের টুয়া গ্রামের ফজলুল হক দালাল চক্রের মূল হোতা হিসাবে প্রমাণীত হওয়ায় তার মাত্র ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সে সাথে রফিক থেকে ৫ হাজার ও শাহিদার ৫ হাজার টাকা ঘুষ হিসাবে নেয়। ২ মেম্বারের উপস্থিতিতে রফিক থেকে ৫ হাজার টাকা ও শাহিদা থেকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়, সে সাথে শালিশের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দালাল ফজল ও শাহিদাকে জুতার মালা গলায় দিয়ে গোটা গ্রাম ঘুরানো হয়। এই ব্যাপারে নাওটীর মেম্বার বেলায়েত হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।




Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply