রমজান সামনে রেখে লাকসামে দ্রব্যমূল্য অস্বাভাবিক বাড়ছে

লাকসাম সংবাদদাতা :
পবিত্র রমজান শুরুর আগেই লাকসামে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। সরকারিভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণহীন থাকায় এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ীরা দ্রব্যের দাম নিজেদের ইচ্ছামত হাঁকিয়ে বিক্রি করছে। সরকারের দুর্বলতার সুযোগে লাকসামে এক শ্রেণীর পাইকারি ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট গত কয়েক বছরের ব্যবধানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে ও বিক্রি করে এখন কোটি কোটি টাকার মালিক। এবারও রমজানের আগেই নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল মজুদ করে তারা দাম বৃদ্ধি করে দিয়েছে বলে ক্রেতারা অভিযোগ করেন। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ এখন চরম আকার ধারণ করেছে এবং তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

জানা যায়, লাকসামের পাইকারি ব্যবসায়ীদের ঘরে চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামালের ব্যাপক মজুত থাকলেও অসাধু ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। লাকসামের কয়েকজন পাইকারি ব্যবসায়ী লাকসামসহ মনোহরগঞ্জ, নাঙ্গলকোট, সদর দক্ষিণের একাংশ, নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী বাজার ও চাটখিল বাজার নিয়ন্ত্রণ করে। তাদের গুদামে রয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের ব্যাপক মজুত। হিন্দু ব্যবসায়ী নিতাই সাহা ও গৌরাঙ্গ সাহা দুই ভাই কাউকে বুঝতে দেয় না তারা এখন কত টাকার মালিক। অথচ তাদের রয়েছে কয়েকটি গুদাম ও মজুত ব্যবসা। এছাড়া আরও কিছু ব্যবসায়ীর বিল্ডিং বাড়ি দেখে শহরের মানুষ বলে বেড়াচ্ছে এ তো আমাদের টাকার বাড়ি। এসব পাইকারি ব্যবসায়ীকে নিয়ন্ত্রণ করার মতো কেউ নেই। কথা রয়েছে প্রভাবশালী ও রাজনৈতিক ছত্রছায়ার কারণে তারা পার পেয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে লাকসাম বাজারে খুচরা চাল প্রতি কেজি ৪০ টাকা, চিনি ৭০ টাকা, মসুর ডাল ১১০ টাকা, মুগডাল ১২০টাকা, ছোলা বুট ৬০ টাকা, মরিচের গুঁড়া কেজি ২২০টাকা, হলুদের কেজি ৩০০ টাকা, তেল ফ্রেস ১২৫ টাকা, সরিষার তেল লিটার ১৪৫ টাকা, পেঁয়াজ ৩০ টাকা ও রসুন ১০০টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ঊর্ধ্বমুখী দ্রব্যমূল্যের জাঁতাকলে শহর ও গ্রামাঞ্চলের সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা বিপন্ন হয়ে পড়েছে।




Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply