মেঘনা নদীর ভাঙনে সরাইলের দুই গ্রাম ।। নদী গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে কৃষি জমি

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়া :

মেঘনা নদীর ভাঙ্গনের কারণে সরাইল উপজেলার দুটি গ্রাম বিলীন হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে । ইতি মধ্যে উপজেলার রাজাপুর ও দুবাজাইল গ্রাম দু’টি মেঘনা নদীর ভাঙনের কবলে পড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ।

গ্রাম দু’টির বিভিন্ন অংশ ও কৃষি আবাদী জমি মেঘনার নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বাপ-দাদার ভিটা ছেড়ে আড়াই শতাধিক পরিবার অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হয়েছে। এসব পরিবার হারিয়েছে তাদের কৃষি জমি।

উপজেলার ঐতিহ্যবাহী এলাকা অরুয়াইল ইউনিয়ন । এই ইউনিয়নে পুরনো বড়বাজার , স্কুল কলেজ ,ব্যবসা কেন্দ্র রয়েছে । আশপাশ এলাকার মানুষের যাতায়ত ও বেশী এখানে । অরুয়াইল ইউনিয়নের পাশে রয়েছে তিতাস নদীর শাখা সেতরা নদী । ইউনিয়ন সদর থেকে প্রায় ৭ কিলোমিটার দূরে রাজাপুর ও দুবাজাইল গ্রাম । ১৩ হাজার লোকের বসতি এ গ্রাম দুটিতে । গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে মেঘনা নদী । এ নদীর ভাঙ্গন এখন গ্রাম দুটিকে খুবলে খেতে শুরু করেছে ।

গ্রামের প্রবীণ লোকজন জানান, এক সময় গ্রাম থেকে মেঘনা নদীর দূরত্ব ছিল ১/২ কি:মি:। ধীরে ধীরে ভেঙে নদী পূর্ব দিকে সমপ্রসারিত হয়ে লোকালয়ে উঠেছে । বর্তমানে নদীর দুরত্ব গ্রামের খুব কাছে। কোন কোন স্থানে ভাঙনে গ্রামের বেশকিছু ঘর-বাড়ি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আড়াই শতাধিক পরিবার গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

রাজাপুরের মোশারফ হোসেন জানান নদী গর্ভে তার বাড়িঘর ভেঙ্গে গেছে । তিনি এখন পার্শ্ববর্তী কাকরিয়া গ্রামে বসবাস করছেন । এমন অনেকেই ঘরবাড়ি হারিয়েছেন । গ্রাম ঘুরে দেখা যায়, আশপাশে রয়েছে কয়েক হাজার একর কৃষি জমি। এলকাবাসীর আয়ের অন্যতম উৎস এ জমি গুলো এখন ভাঙনের মূখে। নদীর তীরবর্তী ফসলি জমি ব্যাপক ভাঙগন চলছে।

অরুয়াইল ইউনিয়নের বর্তমানে বিদায়ী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হাকিম বলেন, ভাঙনের কারনে বাড়ি ঘর হারিয়ে চর কাকরিয়া নামকস্থানে বসতি গড়েছে আড়াই শতাধিক পরিবার। নিজেও হারিয়েছি বাপ-দাদার ৬০/৬৫ বিঘা কৃষি জমি। ভাঙনরোধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড বিভিন্ন স্থানে একাধিকবার লিখিতভাবে জানিয়েছি, কোন লাভ হয়নি ।

এব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্রাহ্মণবাড়িয়াস্থ উপবিভাগীয় প্রকৌশলীর কার্যালয়ে যোগাযোগ করলে জানানো হয়, নদীভাঙ্গন প্রতিরোধে আমরা আবেদন পেয়ে প্রতিরোধ বাঁধ নির্মাণের জন্য প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি ।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply