অর্থ অভাব পিছু হটাতে পারছে না জীবন সংগ্রামী শরিফকে

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়া :

নের সাথে যুদ্ধ করে জয়ী হতে চাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের সাহার পাড় গ্রামের গোলাম জিলানীর ছেলে শরিফ উদ্দিন (২২)। চার ভাই এক বোন ও বাবা মা নিয়ে তার পরিবার। শরিফের বাবা একজন কৃষক, তার কোন জমি-জমা নেই। অন্যের জমি চাষ করে কোন রকমে তাদের সংসার চলে। অর্থের অভাবে সে লেখা পড়া করতে পারে নাই। প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ঝড়ে যাওয়া শরিফ তের বছর বয়সে নেমে পড়ে জীবিকার তাগিদে । সিলেটের একটি বেকারীতে পেটে ভাতে দুই বছর চাকরী করে। পরে বাড়ি এসে তার কাকার দোকানে আর্টের কাজ শিখতে শুরম্ন করে। ছয় মাস কাজ শিখার পর আবার সিলেটে চলে যায়। সেখানে একটি হোটেলে কিছু দিন হোটেলবয় -এর কাজ করে। কাজের ফাঁকে ফাঁকে শরিফ একটি আর্টের দোকান খুঁজে বের করে। সেখানে তিন শত টাকা বেতনে শিড়্গানবিশ অবস্থায় চাকরী নেয়। এক বছর চাকরী করে আর্টের পাশাপাশি শ্বেত পাথর খোদায় করার কাজও শিখে। পরে চট্টগ্রামে একটি সুয়েটার ফ্যাক্টরীতে ৪ হাজার টাকা বেতনে দেড় বছর চাকরী করে বাড়ি চলে আসে। কিছু দিন বাড়িতে থাকার পর আবার ঢাকায় গিয়ে একটি এ্যাড ফার্মে ৫ হাজার টাকা বেতনে চাকরী নেই। সেখানেও এক বছর চকরী করে আবার বাড়ি চলে আসে। কসবা উপজেলার কুটি বাজারে একটি দোকানে দুই বছর সেলাই মেশিনের মেরামতের কাজ শিখে। তার ইচ্ছা নিজে দোকান করবে। ২০১০ সালে পিছু ধরেন নবীনগর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিড়্গক আবু মুছা স্যারের। নর্থ হাই-স্কুল মার্কেটে গলির মধ্যে ড্রেনের উপর ছোট একটি দোকানের সুযোগ করে দেন স্যার। সে বিভিন্ন এনজিও থেকে ১৫/২০ হাজার করে লড়্গাধিক টাকা ঋণ তোলে এই দোকানে আর্ট, শ্বেত পাথরে খোদায়, সেলাই মেশিন মেরামত ও বিক্রি করে।

শরিফের সাথে কথা বললে সে জানায়, এই টাকার পুজিতে তার মনের মত করে ব্যবসা করতে পারছেনা। আরও পুজি হলে ভাল ভাবে ব্যবসা করা যেত। শেষ ইচ্ছা কম্পিউটারে গ্রাফিক্সের কাজ শিখার। গ্রাফিক্সের কাজ শিখে শ্বেত পাথর ও ডিজিটাল সাইন বোর্ডের ডিজাইন করতে পারবে। তাই সে গ্রাফিক্সের কাজ শিখছে। এতে অন্যের কাছে পর নির্ভরশীল হতে হবে না। সে নিজের পায়ে স্বাবলম্বী হতে চায়। তার মনে দুঃখ, অর্থের অভাবে সে পড়াশুনা করতে না পারলেও তার ভাই-বোনদেরকে পড়াশোনা করাবে। তার দুই ভাই চট্টগ্রাম হাটহাজারী মাদ্রাসায়, এক ভাই গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও বোন উপজেলার শিবপুর হাই স্কুলে পড়াশোনা করে।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply