সদর দক্ষিণে শিকল বেঁধে এক মাদরাসা ছাত্রকে নির্যাতন, ৫ দিন পর উদ্ধার

সদর দক্ষিন সংবাদদাতা :
কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার এক মাদরাসায় সোহেল (১০) নামের ছাত্রকে পায়ে শিকল বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতন চালিয়ে তার শরীর ক্ষতবিক্ষত করা হয়েছে। গতকাল ওই ছাত্র অপর ছাত্রদের সহায়তায় পালিয়ে আসে। পরে তাকে ভর্তি করা হয় কুমেক হাসপাতালে। বর্তমানে হাসপাতালের বেডে যন্ত্রণায় ছটফট করছে সে। জানা যায়, জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার রামচন্দ্রপুর নুরানী মাদরাসার প্রথম শ্রেণীর ছাত্র সোহেল। নানা কারণে ওই মাদরাসার শিক্ষকদের কথার বাইরে কিছু করা হলেই সেখানে ছাত্রদের ওপর চলে নির্মম নির্যাতন। নির্যাতনে অতিষ্ঠরা যেন পালিয়ে যেতে না পারে সেজন্য শিকল দিয়ে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন। এমনই নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ওই শিশু ছাত্র সোহেলের ওপর। ওই মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা ওজায়েফা তাকে গত ৫ দিন যাবত বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে শেকল দিয়ে বেঁধে রাখে মাদরাসার একটি কক্ষে আটকে রাখে। পরে মাদরাসার অপর ছাত্রদের সহায়তায় সে মাদরাসা থেকে পালিয়ে আসে। সে একই উপজেলার বাগমারা ইউনিয়নের হলুদিয়া গ্রামের হানিফ মিয়ার পুত্র। খবর পেয়ে সোহেলের বাবা পুলিশ নিয়ে মাদরাসার ওই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে মাদরাসার কমিটির সদস্য ও স্থানীয় কয়েক জন তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়। এ ব্যপারে সদর দক্ষিণ থানায় সোহেলের বাবা হানিফ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি জানান মামলা দায়েরের পর পুলিশ অভিযুক্ত ওই মাওলানাকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে




Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply