সরাইলে দফায় দফায় সংঘর্ষ আহত অর্ধশতাধিক : রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়া :

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দুই দল গ্রামবাসীর দফায় দফায় সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ উভয় পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১১ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

বৃহস্পতিবার উপজেলার সদর ইউনিয়নের স্বল্পনোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা ও পরাজিত চেয়রম্যান পদ প্রার্থী মো. আব্দুর রহমানের সমর্থক ও একই গ্রামের অপর পরাজিত চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী শের আলমের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ বাঁধে। আহতদের মধ্যে ৮ জন গুরুতর আহত। মুমূর্ষ অবস্থায় ১ ব্যক্তিকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের জেলা সদর হাসপাতাল ও সরাইল উপজেলা স্বাস্থ কমপেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্র জানায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের স্বল্পনোয়াগাঁও গ্রামের মো. আব্দুর রহমানের সমর্থক মামুন মিয়াকে (৩০) শের আলমের লোকজন বুধবার রাতে মারধর করে গুরুতর জখম করে। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে উভয় পক্ষের দাঙ্গাবাজ লোকজন দা-বলম, ইটপাটকেল ও লাটিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এক ঘন্টা বিরতির পর দুপুর ১টায় উভয় পক্ষ পুনরায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে আশপাশের ২/১টি গ্রামের লোকজন অংশ নেয়। ফলে সংঘর্ষটি ভয়াবহ আকার ধারণ করে। থানাপুলিশের পাশাপাশি জেলা থেকে ১ পাটুন দাঙ্গাপুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এতে উভয় পক্ষের নারী পুরুষ সহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে।

আহতদের মধ্যে মোশাররফ হোসেনকে (৩০) আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। মো. মাহফুজুর রহমান (৩৫), মুছা মিয়া (৫০), জালাল মিয়া (২৫) ও সুজন মিয়াকে (২২) জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া মো.উজ্জল মিয়া (৩০), ইকবাল (২৪), রতন (২৫), বশির মিয়া (৩৫), কালু (২০), আনোয়ার (২৪), মনির হোসেন (২৮), নুর আলী (৫৫), দুলাল মিয়া (৪০), মোরশেদা বেগম (৩০) ও শাহীনুর মিয়াকে (২৫) স্থানীয় উপজেলা ¯^v¯’¨ কমপেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আন্যান্যদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। স্বল্পনোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্র কাউছার জানায়, মারামারির কারনে স্যাররা আমাদেরকে ছুটি দিয়ে দিয়েছে।

সরাইল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ১১ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) মো.জহিরুল ইসলাম খাঁন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত থাকলেও ফের সংঘর্ষের আশংকায় ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply