তিতাস উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ ও রেব সদস্যসহ নয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল

নাজমুল করিম ফারুক (তিতাস) : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার ঢাকা-গোপালদী সড়কের দক্ষিণপাড়া ব্রিজসংলগ্ন এলাকায় গত ৩ এপ্রিল রাতে র‌্যাব-১১, সিপিসি-১ এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের (একাংশের) নেতাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ এনে নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার গত ২৫ এপ্রিল ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার ও ৬ রেব সদস্যসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেন।
মামলার বদৌলতে অভিযোগ করা হয়, তিতাস উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ নির্বাচিত হওয়ার পর গোমতী নদীর দণি পাড়ের ভূমিহীনদের উচ্ছেদ করে তা কুগিত করার পদপে নিলে শফিকুল ইসলাম বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এ কারণে বিভিন্ন সময় আসামি পারভেজ তার স্বামীকে খুন করে লাশ গুম করার হুমকি দেয়। এ ব্যাপারে থানায় একাধিক সাধারণ ডায়েরীও রয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে আরো জানা যায়, সফিকুল ইসলামের বাধা অপসারণের জন্য তার পোষা সন্ত্রাসী তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের মনির হোসেন ও আবদুল্লাহর যোগসাজশে র‌্যাব-১১ এর সদস্যদের দিয়ে সফিকুল ইসলামকে হত্যা করে এবং গত ৩ এপ্রিল ঢাকার যাত্রাবাড়ীর পেট্রোল পাম্পের পূর্ব পাশে শফিকুল ইসলামকে মৃত দেহ পাওয়া যায়। র‌্যাব-১১ এর জেসিও নায়েব সুবেদার ইউনুস আলীর সাথে আসামী পারভেজ হোসেন সরকার, মনির হোসেন ও আবদুল্লাহ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।
নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তারের আইনজীবি কাজী নজিব উল্লাহ হিরু সাংবাদিকদের জানান, সোমবার মামলাটি করা হলেও মামলাটিতে কোনো আদেশ হওয়ার পর মামলার খবরটি সাংবাদিকদের জানাতে চেয়েছিলেন তাহমিনা আক্তার। কিন্তু মঙ্গলবারসহ দু’দিন পার হয়ে গেলেও হাকিম কোনো আদেশ দিতে পারেননি। আগামী ২ মে আদেশ দেওয়া হবে বলে হাকিম জানিয়েছেন। ঢাকা মহানগর হাকিম মোস্তফা শাহরিয়ার খান অভিযোগ সম্পর্কে সোমবার বাদীর জবানবন্দি নিয়েছিলেন বলে জানান আইনজীবি। মামলার আসামিরা হলেন- র‌্যাব-১১ এর জেসিও নায়েব সুবেদার ইউনুস আলী, এবি মিজানুর রহমান, ল্যান্স নায়েক আল আমীন, কনষ্টেবল বিপুল বিশ্বাস, আমিনুল ইসলাম, আমজাদ হোসেন এবং তিতাস উপজেলার চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার, তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের মনির হোসেন ও মোঃ আবদুল্লাহ।
এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, এটি একটি পরিকল্পিত মিথ্যা মামলা। একটি চক্র আসন্ন ইউপি নির্বাচনের পূর্ব মূহুর্তে এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ল্েয উদ্দেশপ্রোনিতভাবে অভিযোগটি দাখিল করেন এবং এই চক্রটি যে কোন সময় আমাকে হত্যা করতে পারে। তিনি অভিযোগ পত্রের আলোকে বলেন, তিতাস উপজেলাধীন ২২৪নং গোপালপুর জোয়ার মৌজায় ৩০০৫ দাগের সরকারী খাস ২.৬০ একর ভূমি বিগত ১৯৯৩ সনের বিধি বহির্ভূতভাবে মোঃ সফিক গং মোট ২১ জন ব্যক্তিবর্গ নামে বন্দোবস্ত নিয়ে বাড়ী-ঘর-দোকান-পাট নির্মাণ করে বসবাস ও ব্যবসা বাণিজ্য করছে। উক্ত জায়গা সংলগ্ন ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপনের কার্যক্রম চলছে বিধায় উপজেলা পরিষদের রাজস্ব আয় বৃদ্ধির ল্েয বন্দোবস্ত বাতিলক্রমে উপজেলা পরিষদের অনুকূলে হস্তান্তরের জন্য গত ২৮ জুন’১০ইং তারিখে উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত মোতাবেক জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে ভূমি মন্ত্রণালয়ের বরাবরে প্রস্তাব প্রেরণ করলে মোঃ সফিকুল ইসলাম সরকারী কার্যক্রমে বাধা প্রদান করে এবং আমার উপর ুদ্ধ হয়ে আমাকে প্রাণ নাশের হুকমী দেয়। এ ব্যাপারে তিতাস থানা একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। ডায়েরী নং- ৮৯৫, তারিখ ঃ ২৫/০৮/২০১০ইং।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply