রাজনৈতিক নেতাদের নির্যাতনের সমুচিত জবাব এদেশের জনগন একদিন দেবে —এটিএম আজহার

কুমিল্লা সংবাদদাতা :
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও সেক্রেটারীর জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ সহ দেশের শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদেরকে সেফ হোমের নামে টর্চার সেলে রিমান্ডের নামে নির্যাতন করা হলে এদেশবাসী একদিন তার সমুচিত জবাব দেবে। বর্তমান সরকার ট্রানজিটের নামে ভারত কে করিডোর দিতে চায়- যা দিয়ে ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলের ৭টি রাজ্যে বিরোধী দলের আন্দোলনের ধমনের নামে আমাদের দেশের উপর দিয়ে ট্রাক, লরি, অস্ত্রসস্ত্র বহন করা হবে। অপর দিকে টিপাইমুখে বাধঁ দিয়ে দেশ কে মরুভূমি করার প্রয়াস চালাচ্ছে। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী এসবের বিরোধিতা করছে বলেই ভারত কে খুশী করতে জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের কে অন্যায়ভাবে আটক করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার কুমিল্লা অঞ্চলের ৫টি সাংগঠনিক জেলার দায়িত্বশীল সম্মেলনে স্থানীয় একটি হোটেল মিলানায়তনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলাম একথা বলেন। অঞ্চল পরিচালক কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মুহাম্মদ আব্দুর রব এর সভাপতিত্বে ও শহর জামায়াতের আমীর কাজী দ্বীন মোহাম্মদের পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ ও আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট জসীম উদ্দিন সরকার, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য সাবেক এমপি ডাঃ সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, কেন্দ্রীয় নেতা মুহাম্মদ আব্দুর রবের উদ্বোধনী বক্তব্যের পর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও কুমিল্লা অঞ্চল সহকারী পরিচালক মাওলানা আব্দুল হালিম দারসে কুরআন পেশ করেন। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে আরও বলেন- ৪০ বছরের পুরাতন মীমাংশিত ইস্যুকে নিয়ে জামায়াত নেতৃবৃন্দ কে অন্যায়ভাবে আটক করা হয়েছে। জামায়াত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ সরকার প্রমান করতে না পেরে সরকারই প্রমান করেছে তাদের অভিযোগ মিথ্যা। এ সরকার ক্ষমতা আসার আগে ওয়াদা করেছিল ১০ টাকা কেজি চাল, ঘরে ঘরে চাকুরী, বিনামূল্যে সার, আইন শৃংক্ষলার উন্নতি করবে। অথচ সররকার এসব সকল ক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। তারা গ্যাস, বিদ্যুৎ দিতে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে। তিনি নারী নীতি প্রসঙ্গে বলেন আমরা নারী নীতির বিরোধী নই, ইসলাম বিরোধী নীতি বাতিল করার কথা বলছি। শিক্ষা নীতিতে ইসলামের সাতে সাংঘর্ষিক নীতি গুলো বাধ দিতে হবে। তিনি বলেন- আমরা বেঁচে থাকতে এদেশে কুরআন সুন্নাহ বিরোধী কোন কাজ করতে দেব না। তিনি এ সরকারের বিরুদ্ধে বলেন তারা নিজেরা ফতোয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে নিজেরাই ফতোয়া দিচ্ছে। তিনি বলেন বিদেশী প্রভুদের খুশী করার জন্য জামায়াত নেতৃবৃন্দকে আটক করা হয়েছে। এটা করে সরকারের পতন ঠেকানো যাবে না। জামায়াতে ইসলামী ঢুনকো একটি দল নয়- এদল তৃনমূলে আপামর জনতার হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। জেল জুলুম নির্যাতন চালিয়ে জামায়তের আন্দোলন কে বারন করা যাবে না। অতীতে বহুবার কায়েমী স্বার্থবাদীরা জামায়াতে ইসলামীকে বেআইনী ঘোষনা করে ব্যর্থ হয়েছে। তিনি ইসলামের শ্বাশ্বত বিধানের পক্ষে দাওয়াতি কাজ আরও বেগবান করার আহবান জানান। সামাজিক পরিবর্তন আনতে হলে ইসলামের আলোকে চরিত্র গঠন করে বাস্তব ভিত্তিক দাওয়াতি কাজ সম্প্রসারন করতে হবে। তিনি দাওয়াতি কাজ তৃনমূলে সংগঠন সম্প্রসারন ও সমাজের সমস্যার সমাধানে প্রতিটি জামায়ত কর্মীকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি সাহসিকতার সহিত রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করে রাজনৈতিক পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত রাখতে বলেন। তিনি বলেন বিশ্বে সমাজতন্ত্র ৭৪ বছরের ব্যবধানে শেষ হয়ে গেছে পূজিবাদ ও শেষ। ৫টি যুগের মধ্যে ৪টিই শেষ এখন পুনঃ খেলাফতের যুগে ফিরে আসার অপার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে। বিশেষ অতিথি এডভোকেট জসীম উদ্দিন সরকার বলেন- ইসলামী আন্দোলন একটি নিয়ামত। আমরা এ নেয়ামতের অংশীদার হতে পেরে আল্লার শুকরিয়া আদায় করছি। কোন এক সময় এ আন্দোলনের কথা বলা কঠিন ছিল এখন আর এ অবস্থা নেই। তিনি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের যে অপবাদ দিচ্ছিল তা থেকে আল্লাহ মুক্তি দেবেন ইনশাআল্লাহ। অন্যায়ভাবে নেতৃবৃন্দ কে আটক রাখা বড় জুলুম। দৃঢ়তার সাথে আমাদের কে মুকাবিলা করে যেতে হবে। ডাঃ সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের বলেন- জামায়াতে ইসলামী প্রচলিত অর্থে কোন সংগঠন নয়। এটি একটি বিজ্ঞান ভিত্তিক সংগঠন। জামায়াতে ইসলামী কি, কেন, কিভাবে তা রপ্ত করতে হবে। নিয়ম মাফিক কাজ করতে হবে। দায়িত্বশীলগন কে সুষ্ঠ পরিকল্পনার মাধ্যমে কাজ করে যেতে হবে। ইসলামী আন্দোলন করতে হলে মাঠে ময়দানে থেকে মার খেতে হবে, জেল জুলুম নির্যাতন সহ্য করতে হবে। সর্বপরি শাহাদাৎ বরন করতে হবে। সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুর রব বলেন- দায়িত্ব অবহিত হবার পর বসে থাকার কোন সুযোগ নেই। ময়দানে জনগনকে সাথে নিয়ে ঝাপিয়ে পরে কাজ করতে হবে।

Check Also

দেবিদ্বারে অগ্নিকান্ডে ১কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ– কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামে রান্না ঘরের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে ১৫টি ...

Leave a Reply