যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বেদনা আমাকে পিড়া দেয়

নাজমুল করিম ফারুক (তিতাস) : কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার বলরামপুর ইউনিয়নের মনাইরকান্দি গ্রামের মৃত চাঁন মিয়া সরকারের পুত্র বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবদুস সালাম মুন্সি। মাত্র ২৩ বছর বয়সে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহ্যাসিক ৭ মার্চ ১৯৭১ সালের ভাষণে অনুপ্রাণিত হয়ে মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।
একান্ত সাাৎকারে বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম আমাদের কুমিল্লাকে জানান, যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীকে মোকাবেলা করার জন্য প্রথমে ভারতের মেলাঘর থেকে বাছাই করে প্রশিণের জন্য তেলঢালা পাঠান। তৎকালীন ক্যাপ্টেন মহসিন উদ্দিনের (ভারতীয়) অধীনে অস্ত্র চালানোর প্রশিণ নেই। পরে উচ্চতর প্রশিণের জন্য রংপুরে প্রশিণ গ্রহণ করেন। তারপর সাহসী মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবদুস সালাম মুন্সি দেশের রংপুর সেক্টরে কমান্ডার ক্যাপ্টেন মহসিন উদ্দিনের অধীনে থেকে দুই মাস তের দিন যুদ্ধ করেন। বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবদুস সালাম মুন্সি স্বাধীনতা যুদ্ধে সম্মুখ সমরের যুদ্ধা ছিলেন। তিনি রংপুর বাহাদুরবাদ এবং কুড়িগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় পাকহানাদের বাহিনী ও তাদের দেশীয় দোসরদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন।
প্রথমে তিনি কর্ণেল ওসমানের নেতৃত্বে ছাতক বর্ডার দিয়ে এসে বেতরায় অবস্থান করেন। ৮ নভেম্বর ১৯৭১ সালে বেতরা বাজার পাকবাহিনীর বি.ইউ.পি ক্যাম্পে আক্রমণ করেন। এতে সহকর্মী হোসেন আলী ও আবদুল হাই যুদ্ধে শাহাদাত বরণ করেন এবং অনেক মুক্তিযোদ্ধা আহত হয়। সে অপারেশনেও আমরা জয়ী হয়ে ছিনিয়ে আনি বাংলার স্বাধীনতা। বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম মুন্সি বর্তমানে ৬ সন্তানের জনক। স্বাধীনতা যুদ্ধে জয় লাভের শেষ হলেও শুরু হয় ব্যক্তি জীবনের যুদ্ধ। প্রথম ধাপে চাকুরী করে সময় কাটালেও আজ যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বেদনা তাকে পিড়া দেয় বলে তিনি উক্ত প্রতিনিধিকে একথা বলেন। বর্তমানে তিনি সন্তান-সন্তানাদি নিয়ে স্বাভাবিক জীবনে চলাফেলার করলেও তিনি ােভ প্রকাশ করে বলেন, কেউ যদি স্বাধীনতার সম্পর্কে কটুক্তি করেন তাহলে শরীরের প্রতিটি রক্ত কণিকায় আগুন ধরে মনে হয় আবার যদি আরেকটি যুদ্ধ হত শেষ জীবনেও অস্ত্র হাতে নিয়ে এদের প্রতিহত করতাম। এদের শেষ করে তবেই অস্ত্র ছাড়তাম। বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম মুন্সি চান- যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন হউক। তাদের শাস্তি নিশ্চিত হলে তবেই স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশ নেওয়া স্বার্থক হয়ে উঠবে বলে তিনি মনে করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply