স্বপ্নের বিশ্বকাপ : ফাইনালে এই প্রথম খেলছে ভারতীয় উপমাদেশের দুই দেশ

সাদিয়া সুমি (কুমিল্লাওয়েব ডেস্ক) : শনিবার ভারত-শ্রীলঙ্কার এই স্বপ্নের ফাইনাল দেখতে প্রতি সেকেন্ড গুণছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় শুরু হবে এ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ম্যাচ।
ক্রিকেট ইতিহাসে একদিনের ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত ১২৮ বার খেলেছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। তার মধ্যে ভারত জিতেছে ৬৭টি ম্যাচে। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কা ৫০টিতে। কোনো ফল আসেনি ১১ ম্যাচে। এদিক থেকে চিন্তা করলে ভারত অবশ্যই এগিয়ে আছে তাদের পক্ষে এবং স্বপ্নের কাপের দিকে। এবং সেই সাথে ম্যাচ অনুষ্ঠিতও হচ্ছে তাদের নিজেদের মাটিতেই।
এর আগে ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে দেখা হয়েছিলো দল দুটির। ইডেন গার্ডেনের ওই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে নাকাল হয় ভারত। বিশ্বকাপ ফাইনালে ওই ম্যাচের পুনরাবৃত্তি চাইবে শ্রীলঙ্কা। এই বিবেচনায় যেহেতু বিশ্বকাপ, অতএব শ্রীলংকা এগিয়ে আছে। এটা তো সবাই জানে যে, শ্রীলংকান দল যেকোনো দেশে গিয়ে নিজেদের মতোই খেলতে প্রস্তুত থাকে সর্বদা।

‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হার ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টাই ছাড়া বাকি চার ম্যাচেই সহজ জয় পেয়েছে দলটি।
তবে নকআউট পর্বে এসে দারুণ খেলতে থাকে ভারত। কোয়ার্টার ফাইনালে তারা বিদায় করে দেয় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে, যা ক্রিকেট ইতিহাসে সত্যিই বিস্ময়কর ছিলো। আর বিশ্বকাপে চমৎকার খেলতে থাকা পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে তারা।

অন্যদিকে শ্রীলঙ্কান দলও রয়েছে দারুণ ছন্দে। গ্রুপ পর্বে তারা হেরেছে কেবল পাকিস্তানের কাছে। বৃষ্টির কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়। এছাড়া বাকি চার ম্যাচে পেয়েছে সহজ জয়। কোয়ার্টার ফাইনালে তারা ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে ১০ উইকেটে। সেমিফাইনালে ৫ উইকেটে হারায় নিউজিল্যান্ডকে।

দুই ‘গ্রেট’ ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার ও মুত্তিয়া মুরালিধরনের হয়তো এটাই শেষ বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ জযের অতীত অভিজ্ঞতা থাকায় মুরালি একটু এগিয়ে। তবে নিজ দেশে বিশ্বকাপ জিতেই শেষ করতে চান শচীনও।

শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানরাও ভালো ফর্মে আছেন। বিশেষ করে দলের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান উপুল থারাঙ্গা ও তিলকারত্নে দিলশান তো দারুণ খেলছেন। এ বিশ্বকাপেই তারা দুবার দু’শরানের জুটি গড়েছেন। রান পাচ্ছেন অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনেও।
এছাড়াও বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের মালিক দিলশান। তিনি দুটি শতকসহ ৪৬৭ রান করেছেন। এছাড়া উপুল থারাঙ্গা ৩৯৩ ও কুমার সাঙ্গাকারা ৪১৭ রান করেছেন। প্রয়োজনের সময় ঝলসে উঠতে পারেন চামারা সিলভা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসরাও।

অন্যদিকে ভারতের বোলিং আক্রমণের প্রধান অস্ত্র জহির খান। ১৯ উইকেট নিয়ে বল হাতে অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে সবচেয়ে বেশি নির্ভরতা জোগাচ্ছেন তিনি। ভারতের নিয়মিত স্পিনাররাও আলো ছড়াচ্ছেন। তাছাড়া ব্যাটিং-বোলিং উভয় ক্ষেত্রেই দারুণ ফর্মে থাকা যুবরাজ সিং এখন পর্যন্ত চারবার ম্যাচ সেরা হয়েছেন এ আসরে। যুবরাজের ১৩ উইকেট ছাড়াও মুনাফ প্যাটেল নিয়েছেন ১১ উইকেট। এতোদিক বিবেচনা করলে শক্তির হিসেবে ভারত কিছুটা হলেও এগিয়ে আছে শ্রীলঙ্কার চেয়ে। বোলিং নিয়ে শুরুতে একটু সমস্যা থাকলেও ধীরে ধীরে ভারতীয় বোলাররা নিজেদের ফিরে পাচ্ছেন।

অবশ্য একথাও সত্য যে, পিছিয়ে নেই শ্রীলঙ্কার বোলাররাও। লাসিথ মালিঙ্গা, নুয়ান কুলাসেকারা, ম্যাথিউস স্পিন সহায়ক পিচেও প্রতিপক্ষকে চেপে ধরতে পারেন। আর স্পিন সহায়ক পিচে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নিতে প্রস্তুত মুত্তিয়া মুরালিধরন। সঙ্গে আছে অজান্তা মেন্ডিস ও রঙ্গনা হেরাথ। প্রয়োজনে উইকেট নিচ্ছেন দিলশানও।। শনিবার ভারত-শ্রীলঙ্কার এই স্বপ্নের ফাইনাল দেখতে ক্ষণ গুণছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব।

Check Also

কুমিল্লার বিপক্ষে ১৫৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে রাজশাহী

ক্রীড়া প্রতিবেদক :– বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে রাজশাহী কিংসকে ১৫৩ রানের টার্গেট দিলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ...

Leave a Reply