নাঙ্গলকোটে সরকারী ঔষধ বিক্রি করে পাচারের সময় ঔষধ সহ আটক ১

জামাল উদ্দিন স্বপন:
নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের চিকিৎসা সহকারী কর্তৃক স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক হাজী মোহাম্মদ হোসেনের নিকট সরকারী ঔষধ বিক্রি করে পাচারের সময় স্থানীয় জনতা ঔষধ সহ মোহাম্মদ হোসেনকে আটক করেছে। পরবর্তীতে মোহাম্মদ হোসেনের স্বীকারোক্তি নিয়ে ঔষধ স্থানীয় চেয়ারম্যানের জিম্মায় হস্তান্তর করেছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ২১ মার্চ সোমবার উপজেলার রায়কোট স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের চিকিৎসা সহকারী ডাক্তার জাহাঙ্গীর আলম কর্তৃক সরকারী ঔষধ এমোক্সিসিলিন এস, এমোক্সিসিলিন ট্রাই হাইড্রেড বিপি পাউডার ফর সাসপেনশান ১০০ মি:লি: সিরাপের ২০ বোতলের বিক্রিকৃত একটি কার্টুন স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক হাজী মোহাম্মদ হোসেন নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জনতা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের গেটে তাকে আটক করে মাহিনী বাজারে নিয়ে আসেন। এ সময় স্থানীয় জনতা তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে ঔষধগুলো ডাক্তার জাহাঙ্গীর আলমের নিকট থেকে ক্রয় করেছে বলে জানায়। পরে স্থানীয় জনতা হাজী মোহাম্মদ হোসেনকে ছেড়ে দিয়ে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে ঔষধগুলো ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানের নিকট হস্তান্তর করেন। এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, দীর্ঘদিন থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের চিকিৎসা সহকারীর বিরুদ্ধে সরকারী ঔষধ বাহিরে বিক্রি এবং রোগীদের নিকট ঔষধ বিক্রির অভিযোগ রয়েছে। এ ব্যাপারে, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা: মাহবুবুল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমি অভিযোগ পেয়েছি, এ ব্যাপারে চিকিৎসা সহকারী ডা: জাহাঙ্গীর আলম এবং পরিবার কল্যাণ সহকারীকে ডেকে বিগত ১ বছরের ঔষধের হিসাব মিলিয়ে দেখবো। এতে গরমিল পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান ও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। এ ব্যাপারে এলাকার স্থানীয় জনতা বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। তারা এই ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানান।




Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply