ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হঠাৎ করেই সক্রিয় হিযবুত তাহরীর ॥ এক রাতে সারা শহরে পোস্টারিং

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মনবাড়িয়া ২০ মার্চ ॥
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হঠাৎ করেই সক্রিয় হয়ে উঠেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত হিজবুত তাহরীর। এক রাতে সারা শহরে পোস্টারিং করে তারা তাদের অস্তিত্ব ঘোষণা করেছে। হিজবুত তাহরীর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঘাটি গেরেছে কি না এ প্রশ্ন এখন শহরবাসীর মুখে মুখে। হিজবুত তাহরীর সৃষ্টির পর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুল ও কলেজ পড়–য়া ছাত্রদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে। সাংগঠনিকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শক্তিশালী হয়ে উঠে তারা। নিষিদ্ধ ঘোষণার পরও বিভিন্ন সময় শহরের বিভিন্ন স্থানে তাদের প্রচার পত্র ও পোস্টার চোখে পড়ে। এমনকি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জামে মসজিদে প্রকাশ্যে লিফলেট বিতরণের সময় হিজবুত তাহরীরের এক সদস্যকে আটক করেন মুসুল্লীরা। এরপর কিছুদিন পুলিশি তৎপরতা থাকলেও পরে পুলিশের কাজে ভাটা দেখা দেয়। এ সুযোগে তারা শহরের বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় গোপনে কর্মকান্ড চালাচ্ছে বলে জানা যায়। গত শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে হিজবুত তাহরীর সদস্যরা সারা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলিতে সরকারবিরোধী পোস্টার লাগায়। ভোর হতেই বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে টনক নড়ে থানা পুলিশের। পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পোস্টারগুলো ছিড়ে ফেলে। হিজরীত তাহরীরের সংগঠন সম্পর্কে পুলিশের কাছে কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই বলে জানা গেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার এএসপি শহীদ আবু সারোয়ার জানান, হিজবুত তাহরীর সম্পর্কে তেমন কোনো তথ্য আমাদের জানা নেই। তবে পোস্টারিং এর সূত্র ধরে আমরা অনুসন্ধান চালাচ্ছি। সরকারের একটি প্রভাবশালী গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রে জানা গেছে, শহরের কাজীপাড়া, কলেজপাড়া ও মধ্যপাড়াকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু হিযবুত তাহরীর সদস্য সক্রিয় রয়েছে। নারী নীতিমালা নিয়ে ক্বওমী মাদ্রাসাগুলোর সাথে সম্পৃক্ত হয়ে হিযবুত তাহরীর দেশকে অস্থিতিশীল করার অংশ হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পোস্টারিং করেছে বলে তাদের ধারণা।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply