সরাইলে চুরির অপবাদ দিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ভিক্ষুকের চুল কেটে দিয়েছে গৃহকর্তী

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রা‏‏হ্মণবাড়িয়া) ॥

হাসপাতালে আহত ভিক্ষুক সাফিয়া বেগম
সরাইলে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে হাতুড়ি দিয়ে শারীরিক নির্যাতনের পর নারী ভিক্ষুকের মাথার চুল কেটে দিয়েছে গৃহকর্তী রুবি বেগম (২৭)। নির্যাতিত ভিক্ষুক সাফিয়া বেগম (৪৫) এখন হাসপাতালের বিছানায় ছটফট করছে। এলাকাবাসী ধিক্কার দিচ্ছে গৃহকর্তীকে। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অমানবিক এ ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার বিকেলে উপজেলা সদরের প্রাতঃবাজার সংলগ্ন রুবি বেগমের ভাড়া বাসায়।

প্রত্যক্ষদর্শী এলাকাবাসী জানায়, সদর ইউনিয়নের সাগরদিঘির পাড়ের বাসিন্দা আবদুর রহমানের স্ত্রী সাফিয়া বেগম দারিদ্রতার কারনে দীর্ঘদিন ভিক্ষা বৃত্তি করছেন। ইটালী প্রবাসী স্বামীর স্ত্রী রুবি বেগম প্রাতঃবাজার সংলগ্ন আসমত মিয়ার দু’তলা বাড়ির নীচ তলায় ভাড়া থাকেন। গত শুক্রবার বিকেলে ভিক্ষুক সাফিয়া বেগমকে রুবি তার বাসায় খাবার দেয়ার কথা বলে ডেকে নেন। সরল বিশ্বাসে দু’মুঠো খাবারের লোভে গৃহকর্তী রুবির বাসায় যায় সাফিয়া। মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে রুবি বেগম ভিক্ষুক সাফিয়ার ওপর চালায় অমানবিক নির্যাতন। কিল, ঘুষি, লাথির পাশাপাশি হাতুড়ি দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করলে সাফিয়া গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় নিষ্ঠুর গৃহকর্তী রুবি সাফিয়ার মাথার চুল কেটে দেয়। পরে স্থানীয় জনতা ওই ভিক্ষুককে গৃহকর্তী রুবির কবল থেকে উদ্ধার করে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ওই এলাকার বাসিন্দা হাজী ফরিদ মিয়া (৫৩) বলেন, রুবি ভাল মেয়ে না। শতাধিক লোকের উপস্থিতিতে একজন ভিক্ষুক মহিলাকে হাতুড়ি পেটানোর ঘটনা জীবনে প্রথমে দেখলাম। মুক্তিযোদ্ধা মো. রহমত আলী বলেন, ঘটনাটি অমানবিক ও নিষ্ঠুরতাকেও হার মানিয়েছে। এভাবে একজন নারী আরেক অসহায় নারীকে হাতুড়ি পেটা করেছে, যা দেখে উপস্থিত লোকজন শিউরে উঠেছে। অভিযুক্ত গৃহকর্তী রুবি বেগম বলেন, ৩/৪ দিন পূর্বে আমার ১টি মোবাইল চুরি হয়েছে। আমার বাচ্চা বলেছে কালো একজন মহিলা নিয়েছে। সাফিয়াকে ডেকে এনে মোবাইল ফেরত দিতে বলেছি। ফেরত দেয়নি। তাই মারধর করে চুল কেটে দিয়েছি। এটা অন্যায় হয়েছে। ওদিকে স্থানীয় ব্র্যাক মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচির ব্রা‏‏হ্মণবাড়িয়া জেলার মনিটরিং ইনচার্জ মো. জালাল উদ্দিন এবং সরাইল উপজেলা কর্মসূচী সংগঠক নারগিছ আক্তার বলেন, বিষয়টি জেনে আমরা হাসপাতালে গিয়েছিলাম। ঘটনাটি অমানবিক সাজা। আমরা নির্যাতিত নারীকে আইনি সহায়তা দিব।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply