নাঙ্গলকোটে অগ্নিকান্ডে ৮টি ঘর ভস্মীভূত নিহত ১ : ক্ষয়- ক্ষতি অর্ধ কোটি টাকা

জামাল উদ্দিন স্বপন:

নাঙ্গলকোটের জোড্ডা ইউনিয়নের ঠোল্লাপাড়া গ্রামে বৃহস্পতিবার রাতে আগুনে পুড়ে ৮টি ঘর ভস্মীভূত হয়েছে। আগুন নিভাতে এসে নাঙ্গলকোট পৌরসভাধীন দৌলতপুর গ্রামের মাস্টার আবদুল করিম নিহত হন। ক্ষয়ক্ষতির পরিমান অর্ধ কোটি টাকা বলে ধারনা করা হচ্ছে। এলাকা বাসী সূত্রে জানা যায়, মাস্টার সফি উল্লাহর বাড়ীতে সন্ধা ৭.৩০টায় রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্র পাত হয়ে আশে

পাশের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের লেলিহান শিখা পুরো বাড়ীতে ৮টি ঘর ধাউ ধাউ করে জ্বলতে থাকে। আগুন নিভাতে হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসে কিন্তু আশে পাশের পুকুরে পানি না থাকায় লোকজন শত চেষ্টা করেও আগুন নিভাতে পারেনি। আগুন থেকে রক্ষা করতে জনতা কিছু ঘর ঠেলে ভেঙ্গে ফেলে এতে পানকরা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক আবদুলের ছেলে আবদুল করিম ঘর চাপা পড়ে নিহত হয়। খবর পেয়ে রাত ১২টায় লাকসাম থেকে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। আগুনে মাস্টার সফি উল্লাহর নগদ ৫০ হাজার টাকা সহ ৩টি ঘর সদ্য বসানো ১লাখ ২০হাজার টাকা ১টি সৌর বিদ্যুৎ চ্যানেল,তার ভাই হাফেজ কলিমুল্লার ছেলে মিজানের নগদ ৭০ হাজার টাকাসহ ৩টি ঘর, সাহাব উদ্দীন ও ছোয়াবের ২টি ঘর স্বর্ণালংকার আসবাবপত্র গৃহপালিত পশু ও বাড়ীর ৩টি নারিকেল গাছ সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ রেহান উদ্দীন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলোকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন । এ ছাড়া ও সাবেক কুমিল্লা জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সালা উদ্দীন আহম্মেদ, সাবেক সংসদ সদস্য আঃ গফুর ভূইয়া ও নাঙ্গলকোট উপজেলা বি এন পির সভাপতি মোবাশ্বের আলম ভূইয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও শোক সন্তোপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। গতকাল শুক্র বার জানাযা শেষে পারিপারিক গোরস্থানে নিহতের লাশ দাপন করা হয়। তাঁর মৃতুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।




Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply