এিপুরার বিদ্যুৎ কেন্দ্রের যন্ত্রাংশের ৩টি জাহাজের মালামাল খালাস শুরু

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৭ মার্চ ॥

ভারতীয় এিপুরা রাজ্যের পালাটানায় নির্মানাধীন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী যন্ত্রাংশ নিয়ে গত এক সপ্তাহে আশুগঞ্জ নদী বন্দরে ৩টি জাহাজ এসে পৌছেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে এসব জাহাজের মালামাল খালাস করার কাজ শুরু হয়েছে। তবে আশুগঞ্জ-আখাউড়া সড়ক উন্ন্য়ন কাজ শেষ না হওয়ায় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এসব ভারী যন্ত্রাংশ এই মুহুর্তে ত্রিপরায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না।ফলে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মালামালসহ এই কন্টিনার গুলো স্থানীয় ডিপুতে সংরক্ষিত করা হচ্ছে। চলতি মাসে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এই ভারী যন্ত্রাংশ আখাউড়া সীমান্ত পথ দিয়ে ত্রিপুরায় পরিবহন করা সম্ভব হবে না বলে আশংকা করছেন সওজ।

সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানাযায়, বন্দরের জেটি ঘাট এলাকায় নৌঙ্গর করা জাহাজ গুলো থেকে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের যন্ত্রাংশের কন্টেনার খালাস করে ১৩০ চাক্কার ২টি টেইলর দিয়ে উপজেলার সোনারামপর ভারতের এবিসি কোম্পানীর স্থানীয় ডিপোতে সংরক্ষন করা হচ্ছে।এ সময় রাজস্ব কর্মকর্তা ও পরিবহন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ভারতের এবিসি কোম্পানীর কর্মকর্তরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু আশুগঞ্জ-আগরতলা সড়কের সংস্কার কাজ এখনো শেষ হয়নি।উক্ত সড়ক মালবাহি টেইলর চলাচলের উপযোগি করতে আরো এক মাস সময় লাগতে পারে। আখাউড়া স্থলবন্দর সূত্র জানা গেছে, ত্রিপুরার পালাটানায় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মালামাল নেয়ার জন্য আশুগঞ্জ-আখাউড়া সড়ক চলাচলের উপযোগী কিনা তা পরীক্ষার জন্য আগরতলা থেকে গত ৯ মার্চ ২টি ভারি যানবাহন আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।গত ২২ ফেব্র“য়ারী পশ্চিম বঙ্গের ক্ষিদিরপুর নৌ বন্দর থেকে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী যন্ত্রাংশ নিয়ে প্রথম ৪টি জাহাজ ছেড়ে আসে।এর মধ্যে গত ৯ মার্চ এমভি সাইকা,গত ১২মার্চ এমভি মোক্তাদির-২ ও গত ১৬মার্চ এমভি সোনালী বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এসব মালামাল নিয়ে আশুগঞ্জ নৌবন্দরে পৌছে।বর্তমানে মালামালসহ আরো একটি জাহাজ বাংলাদেশ নৌ সিমানায় অবস্থান করছেন। এরকম আরো ৮৪টি মালবাহী জাহাজ আশুগঞ্জ নদী বন্দরে আসার পর পর্যায়ক্রমে ট্রান্সিপমেন্ট করে টেইলরের মাধ্যমে আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে এিপুরা রাজ্যে নিয়ে যাওয়া হবে।

ভারতীয় এবিসি কোম্পানীর প্রজেক্ট ম্যানেজার সোমনাথ গাঙ্গুলী জানান,এই পর্যন্ত ৩টি জাহাজ মালামাল নিয়ে আশুগঞ্জ নৌবন্দরে নৌঙ্গর করেছে। আরো বেশ কয়েকটি জাহাজ কলকাতার ক্ষিদিরপুর নৌবন্দর ছেড়ে এসেছে। বর্তমানে ৩টি জাহাজের মাল আনলোড করে স্থানীয় ডিপুতে রাখা হচ্ছে। সড়ক উন্নয়ন কাজ শেষ হলে জেলা প্রসাশনের ছাড়পএ নিয়ে এসব মালামাল আগামী ২০ মার্চের পর থেকে পর্যায়ক্রমে আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে এিপুরা রাজ্যে পালাটানায় নিয়ে যাওয়া হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা রাজস্ব কর্মকর্তা কাজী আবুল হোসাইন ও সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান প্রধান জানান, মালামাল পরীক্ষা করে কাগজ পত্র অনুযায়ী সব ঠিক পাওয়া গেছে। মালামাল গুলোর মধ্যে রয়েছে প্রতিটি ৭০ টন ্ওজনের মডিউর ওয়াটার টিউব বয়লার ৮টি,প্রতিটি ৭৫টন ওজনের রি-এ্যাক্টর ট্যাংক ২টি। কাষ্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেই মালামাল খালাস করার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহি প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গির আলম জানান ভারতীয় একটি প্রতিনিধি দল আশুগঞ্জ নৌবন্দরে জাহাজ আসার বিষয়টি অবগত করেছে। তবে আশুগঞ্জ-আখাউড়া সড়ক ভারি যানবাহন চলাচলের উপযোগী না হওয়ায় চলতি মাসে এই সড়ক দিয়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মালামাল পরিবহন করা সম্ভব হবে না।বর্তমানে এই সড়কের ব্রিজ ও কালভার্টের পাশ দিয়ে ডাইভারশন এবং সুলতানপুর-চিনাইর আখাউড়া সড়ক প্রশস্ত করার কাজ চলছে।ইতোমধ্যে উন্নয়ন কাজ প্রায় ৭০ ভাগ শেষ হয়েছে।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply