বাঞ্ছারামপুরে আওয়ামীলীগ নেতার ঘুষবাণিজ্যের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ:শিক্ষকসহ আহত ২৩

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৭ মার্চ ॥
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও ধারিয়ারচর হাজী ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে স্কুলের বিভিন্ন পদে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ বৃহস্পতিবার স্কুল প্রাঙ্গণে প্রতিবাদ সভা চলাকালে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ক্যাডারদের হামলায় ১ শিক্ষকসহ অন্তত ২৩ জন আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিবাদকারীদের বেধড়ক মারধর করে প্রধান শিক্ষকের রোমে আটক করে রাখলে থানা পুলিশ খবর পেয়ে আটককৃতদের উদ্ধার করে।এ ঘটনার প্রতিবাদে দশদোনা গ্রামবাসী বাঞ্ছারামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসে বিশিষ্ট যুবলীগ নেতা তোফাজ্জল হোসেনের নেতৃত্বে প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয়।এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অভিভাবক ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,গত ১৬ মার্চ ধারিয়ারচর উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক,লাইব্রেরিয়ান ও নাইটগার্ড পদে নিয়োগ পরীক্ষায় ব্যাপক অনিয়ম,দুর্নীতি,স্বজনপ্রীতি ও ঘুষবাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে।এর প্রতিবাদে গতকাল বৃহ¯প্রতিবার সকালে স্কুল ভবনের সামনে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য,শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহনে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন চলাকালে আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল ইসলাম ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.ইসমাইল হোসেনের সেকেন্ড ইন কমান্ড ফজলুল করিম, হাবিব ও রবি গ্র“পের হামলায় অন্তত ১১জন আহত হয়েছে।হামলাকারীরা হকিষ্টিক,লাঠি দিয়ে পিটিয়ে বিক্ষোভকারীদের কাছ থেকে ১৩টি মোবাইল সেট,নগদ ২১ হাজার টাকা,স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।আহতরা হলেন-স্কুলটির সহকারী সিনিয়র শিক্ষক মানিকপুর গ্রামের আব্দুল জব্বার (৫৭),জগন্নাথপুর গ্রামের মো.মোকবল হোসেন(২৭),দশদোনা গ্রামের মিলন মিয়া(৬০),শাহাআলম মিয়া(৬১), সিরাজুল ইসলাম(২৬), আকিবুল হক ইয়ামিন (২৫),ফয়সাল উদ্দিন (২০),কামাল উদ্দিন (৩২),জসীম (২৩),রিয়াদ (২৫),মোনায়েম খান(২২),শরিফ (১৪),সোহাগ(১৫), ,আল আমিন(২৮),ইয়ার খান (২২),মোসলেম উদ্দিন(২১),সালাউদ্দিন(২৫),খোকন (২২),শাহ আলম (২৩),বাঞ্ছারামপুরের সুব্রত (২৪),ভূরভূরিয়া গ্রামের ইয়ামিন (২৬),বাশগাড়ী গ্রামের হাসান(৩০),দরিয়াদৌলত গ্রামের সোহাগ (২৩)।আহতরা নিজ নিজ উদ্যোগে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে।

বিক্ষোভকারীরা স্কুল মাঠে প্রতিবাদ সভায় বলেন,বিতর্কিত ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম ও প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেনের অপসারন ও নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস, ঘুষবাণিজ্যের বিরুদ্ধে বিচার ও পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণকরার দাবি জানান।

এব্যাপারে স্কুলটির অভিভাবক প্রতিনিধি হুমায়ূন কবীর বলেন,-‘নিয়োগ প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ অনিয়ম হয়েছে।তবে এলাকাবাসী ও ছাত্রদেও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ সভায় হামলা করা উচিত হয়নি’।উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.মোকারম হোসেন বলেন পরীক্ষার দিন আবেদন জমা দিয়ে ঐদিনই পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৩য় অব্স্থান থেকে ১ম স্থানে নিয়ে আসার অভিযোগটি আমি শুনেছি,যা শিক্ষাকেন্দ্রে মোটেও কাম্য হতে পারেনা’।প্রধান পরীক্ষক (ডিজি অফিস মনোনীত) কসবা সরকারি বয়েজ স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো.শফিউল আলম ফোনে জানান,-‘আমি লিখিত পরীক্ষাটি সুষ্টুভাবে সম্পন্ন করতে চেয়েছিলাম।কিন্তু আমি পরিবেশ-পরিস্থিতির কারনে আমি স্বাধীনভাবে খাতামূল্যায়ন করতে পারেনি।প্রাণ নিয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেছি এটাই হাজার শুকর’।

ধারিয়ারচর হাজী ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.ইসমাইল বলেন,-‘পরীক্ষার দিন লাইব্রেরিয়ান পদে একজনের আবেদন নেয়া হয়েছে তা অবশ্য ঠিক,তবে তথাকথিত লোকের নেতৃত্বে যে মানববন্ধন কর্মসূচী ও প্রতিবাদ সভা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ব্যক্তিবিরোধীভাবে’।

এব্যাপাওে স্কুল কমিটির সভাপতি অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম বলেন,-‘নিয়োগে আমি এক পয়সাও নেইনি।তবে,পরীক্ষার দিন লাইব্রেরিয়ান পদে একজনের আবেদন জমা নেয়া হয়েছে,-তা অবশ্য ঠিক।কাউকে আহত করা হয়েছে এ ব্যাপাওে আমার জানা নেই।আমি যতটুকু শুনেছি দশদোনা গ্রামে উচ্ছৃংখল ছেলেরা এসে স্কুলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে গেছে’।

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বয়ায়ক তোফাজ্জ্বল হোসেন বলেন,-‘ধারিয়ারচর স্কুলে নুরুল ইসলাম সাহেবের আপনজন ফজলুল করীম,হাবিব ও রবি বাহিনীর হাতে প্রতিবাদকারী ২০-২৫জন লোক আহত হয়েছে এ ঘটনার প্রতিবাদে আমরা সুষ্টু বিচারের দাবী করছি’।

বাঞ্ছারামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো.আলাউদ্দিন বলেন,-‘ধারিয়ারচর স্কুলে নিয়োগ নিয়ে আজকে সকালে যে মানববন্ধন কর্মসূচী হয়েছে তাতে কিছু লোক নাকি আহত হয়েছে শুনেছি।কিছু লোক স্কুলে আটক ছিল শুনে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম।এ ব্যাপাওে এখনো কোন মামলা হয়নি’।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক মো.আব্দুল মান্নান বলেন,-‘ বাঞ্ছারামপুরের ধারিয়ারচর স্কুলে নিয়োগের বিরোধিতা কওে যে মানববন্ধন কর্মসূচি ও প্রতিবাদ সভায় হামলার অভিযোগ উঠেছে এ ব্যাপাওে ইউএনও-কে বলে দিয়েছি তদন্ত কওে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য’।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply