সরাইলে ওএমএস’র চালসহ একজন গ্রেফতার

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ॥
সরাইলে দুই বস্তা ওএমএস’র চাল সহ একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে উপজেলার কালীকচ্ছ বাজারের ডিলার মোশারফ মিয়ার দোকান সংলগ্ন সাব্বির হোসেনের রাইছ মিল হাজী ছাবর আলী মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন ও পুলিশ জানায়, গতকাল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কালীকচ্ছ বাজারে ছুটে যান। ওএমএস ডিলার মোশারফ মিয়ার দোকানে গিয়ে দেখেন সকাল ৯টা থেকে ১১টার মধ্যে দেড় মেট্্িরক টন চাল বিক্রি শেষ। একাধিক নারী-পুরুষ চালের জন্য আসছে চাল পাচ্ছে না। ডিলার তাদের জানায় ওই দিনের চাল শেষ হয়ে গেছে। ওদিকে ডিলারের পার্শ্ববতী সাব্বির মিয়ার রাইছ মিল থেকে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে দুই বস্তা (১৭০ কেজি) ওএমএস’র চাল জব্দ করেন নির্বাহী কর্মকর্তা। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ডিলার মোশারফ মিয়ার দোকান কর্মচারী মো. আউয়াল মিয়া (২২) কে গ্রেফতার করা হয়েছে। কালীকচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা বিধবা সখিনা বেগম (৪০), জাহারা বেগম (৫০), হালিমা বেগম (৩৮) ও নোয়াগাঁও গ্রামের রিক্সা চালক মোতালিব মিয়া (৪৫) ক্ষোভের সাথে জানান, সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি, কিন্তু চাল পায়নি। এভাবে চাল গায়েব করলে আমরা গরিব মানুষ চাল পাব কিভাবে। কালীকচ্ছ বাজারের ক’জন ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ডিলার মোশারফ ও তার ব্যবসায়ী পার্টনার সাব্বির মিয়া সরকারি তদারকি অফিসার জয় কুমার হাজরাকে ম্যানেজ করে শুরু থেকেই ২/৪ বস্তা ওএমএস’র চাল কৌশলে সরিয়ে অন্যত্র বেশী দামে বিক্রি করে আসছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন বলেন, সরেজমিনে কালীকচ্ছে গিয়ে দোকান কর্মচারী সহ সকলের সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত হয়েছি যে, অসৎ উদ্দেশ্যে ডিলার মোশারফ মিয়া কৌশলে গোপনে ওই চালগুলি সরিয়ে ফেলেছিল। চালগুলি জব্দ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম খান ওএমএস’র চাল সহ একজন আটকের কথা স্বীকার করে বলেন, কর্তৃপক্ষ মামলা দিচ্ছে। মামলা পেলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাকির হোসেন খান বলেন, মামলার এজাহার লেখার প্রস্তুতি চলছে। কিন্তু কিভাবে এবং ক’জন আসামি করে মামলা দেব বুঝতে পারছি না। উনারা বসে সিদ্ধান্ত নিতেছেন। এদিকে অভিযোগ উঠেছে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রভাবশালী তদবিরবাজরা তাদের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বিকেল সাড়ে ৫টা) থানায় এজাহার দেয়া হয়নি।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply