সরাইলে ইটভাটায় পুড়ছে লাকড়ি ও টায়ার উড়ছে কালো ধূয়া :প্রশাসন নীরব

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ॥

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দু’টি ইটভাটায় অবাধে পোড়ানো হচ্ছে গাছের গুড়ির লাকড়ি ও গাড়ির পুরাতন টায়ার। এতে চিমনি দিয়ে বেরিয়ে আসা কালো ধূয়া উড়ছে। দূষিত হচ্ছে পরিবেশ, নষ্ট হচ্ছে ফসলি জমি। গত রোববার উপজেলার শাহজাদাপুর তৃশা ব্রিকস ও ইসলাম ব্রিকসে গিয়ে দেখা যায়, কোনো রকম নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই ইটভাটায় পোড়ানো হচ্ছে গাছের গুড়ি লাকড়ি ও টায়ার। তৃশা ব্রিকসের ব্যবস্থাপক মো. হারুন মিয়া বলেন, গাছের গুড়িগুলো শ্রমিকদের রান্নার কাজে জ্বালানী হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ইট পোড়ানো হয় কয়লা দিয়েই।

একই এলাকায় ইসলাম ব্রিকসের ব্যবস্থাপক মো. শাহআলম বলেন, এলাকার সব ইট ভাটায় টায়ার ও লাকড়ি পোড়ায়। আমরাও পুড়ছি ভাল মন্দ বুঝিনা। ওদিকে ইট ভাটায় কাঠের লাকড়ি ও বিষাক্ত টায়ার পোড়ানোর কারণে আশপাশ এলাকায় শুধু কালো ধূয়া উড়ছে। স্থানীয় কুনু মিয়া, হীরালাল দাস সহ ক’জন কৃষক বলেন, এ দু’টি ইটভাটায় কাঠ ও গাড়ির পুরাতন টায়ার পুড়ে। কালো দূয়ার কারণে ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। গ্রামের আলতাফ হোসেন, সাবুদ আলী, সিরাজ মিয়া বলেন, ইট ভাটার কালো ধূয়ায় এলাকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। অনেক বৃদ্ধ ব্যক্তি ও শিশুদের শ্বাসকষ্টজনিত রোগ দেখা দিয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, পরিবেশ অধিদফতরের নিয়ম ইটভাটায় শুধু কয়লা পোড়ানো। তৃশা ও ইসলাম ব্রিকসের কর্তৃপক্ষ পরিবেশ অধিদফতরের আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে শুরু থেকেই কাঠ ও টায়ার পুড়িয়ে যাচ্ছেন। মিল দু’টির মালিকপক্ষ বেশ ক্ষমতাধর ব্যক্তি। টাকার জোরও অনেক। তাই তারা অবৈধভাবে কাঠ ও টায়ার পোড়ালেও প্রশাসন নীরব রয়েছেন। এ ব্যাপারে সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নিব।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply