ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মেয়র ও কাউন্সিলার পদে আ’লীগ এর সংখ্যাধিক্য :বিএনপির ফলাফল প্রত্যাখ্যান

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৪মার্চ ॥

রবিবার অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ার পর কাউন্সিলর পদেও আওয়ামী লীগ সমর্থিতরা সংখ্যাধিক্য পেয়েছে। এ নির্বাচনে ১২টি ওয়ার্ডে যারা কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন, ১ নং ওয়ার্ডে সাদেকুল ইসলাম শরীফ (আওয়ামী লীগ), ২ নং ওয়ার্ডে আবুল বাসার (আওয়ামী লীগ), ৩ নং ওয়ার্ডে আব্দুর রাসেদ (আওয়ামী লীগ), ৪ নং ওয়ার্ডে আহসানুল্লাহ হাসান (বিএনপি), ৫ নং ওয়ার্ডে আলী হাসান কাউছার (বিএনপি), ৬ নং ওয়ার্ডে ইকবাল চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), ৭ নং ওয়ার্ডে মোঃ ইউনুছ (আওয়ামী লীগ), ৮ নং ওয়ার্ডে এডঃ শাহআলম (বিএনপি), ৯ নং ওয়ার্ডে শাহ মোঃ নাসিম (আওয়ামী লীগ), ১০ নং ওয়ার্ডে কাউছার মিয়া (বিএনপি), ১১ নং ওয়ার্ডে শেখ বাবর আলী (আওয়ামী লীগ) এবং ১২ নং ওয়ার্ডে আক্তার জাহান (আওয়ামী লীগ)। এছাড়া সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১, ২ ও ৪ নং ওয়ার্ডে হোসনে আরা বাবুল (বিএনপি), ৩, ৫ ও ৮ নং ওয়ার্ডে রাহেলা ইসলাম (আওয়ামী লীগ), ৬, ৭ ও ৯ নং ওয়ার্ডে শামীমা বেগম (আওয়ামী লীগ) এবং ১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ডে নিলুফা ইয়াছমিন (আওয়ামীলীগ) নির্বাচিত হয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করেছে বিএনপি মেয়র প্রার্থী ॥ ১০টি কেন্দ্রে পুনঃ নির্বাচনের দাবী
রবিবার অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে প্রত্যাখান করেছে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি। তিনি গত সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ফলাফল প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। এসময় তিনি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রহসনের নির্বাচন হয়েছে। শহরের ১০টি কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই, জোর করে ব্যালট ছাপানো, সীল মারা, ভোটারদের বাধা দেয়া সহ আমার এজেন্টদেরকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। তিনি এ ১০টি কেন্দ্রে পুনঃ নির্বাচন দাবী করেছেন। কেন্দ্রগুলো হচ্ছে, পৈরতলা উত্তর, পৈরতলা দক্ষিণ, পিটিআই স্কুল, কাজীপাড়া মডেল স্কুল, হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ, পুনিয়াউট প্রাইঃ স্কুল, নয়নপুর জোহরা কাজী স্কুল, গভঃ মডেল গার্লস হাই স্কুল, মধ্যপাড়া পলি কমল স্কুল। এসময় তিনি আরো অভিযোগ করেন, পুলিশের সাথে দাঁড়িয়ে থেকে সন্ত্রাসীরা বোমা হামলা চালিয়েছে। অন্যায়ভাবে সরকারি কলেজ কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দক্ষিণ পৈরতলা কেন্দ্রে প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট এডঃ গোলাম সারোয়ার খোকনকে প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক গুলি করার হুমকি প্রদানের অভিযোগও করেন তিনি। তিনি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক এ ১০টি কেন্দ্রে পুনঃ নির্বাচন দেওয়া না হলে আইনী ব্যবস্থার দিকে যাবেন বলে জানান। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক খোকন, সহ সভাপতি ও প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট এডঃ গোলাম সারোয়ার খোকন, যুগ্ম সম্পাদক হেবজুল বারী, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, মহিলা সম্পাদক শামীমা স্মৃতি ও দপ্তর সম্পাদক মমিনুল হক।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply