সরাইলে জুয়া খেলায় বাধা দেয়ায় সংখ্যালঘুদের নির্যাতনের অভিযোগ

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল :
সরাইলে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবে জুয়া খেলায় বাঁধা দেয়ায় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাত ৯টায় শাহজাদাপুর গ্রামের দাস পাড়ায়। কুনু মিয়ার নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের সংঘবদ্ধ একদল জুয়াড়ির বিরুদ্ধে এন্তার অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

সরজমিনে জানা যায়, অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারও ওই এলাকায় ৪দিন ব্যাপী হিন্দুদের উৎসব শুরু হয় গত রোববার থেকে। উৎসবে আশপাশের হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রায় সহস্রাধিক নারী-পুরুষের সমাগম ঘটে থাকে। গত সোমবার ছিল দ্বিতীয় দিন। রাত নয়টায় কুনু মিয়া, আউশ মিয়া ও দুলাল মিয়ার নেতৃত্বে একদল জুয়াড়ি উৎসব স্থল থেকে প্রায় ৮/১০ গজ দূরে জুয়ার আসর বসায়। জুয়া খেলায় বাঁধা দেয়ায় প্রচন্ড ক্ষেপে যায় জুয়াড়িরা। তারা উত্তেজিত হয়ে স্থানীয় হিন্দু পুরুষ মহিলাদের উপর নির্যাতন চালায়। এসময় উৎসবে আসা লোকজনের মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আত্মরক্ষার্থে তারা মূহুর্তের মধ্যে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি বরদ চন্দ্র দাস ক্ষোভের সাথে বলেন, এলাকার চিহ্নিত জুয়াড়িরা কুনু মিয়ার নেতৃত্বে জুয়া খেলা শুরু করে। বিষয়টি এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ অনেককে জানিয়েছি। কোনো কাজ হয়নি। জুয়াড়িরা পুলিশকে টাকা দিয়েই নাকি অনুমতি এনেছে। আমরা ক’জন খেলায় বাঁধা দেয়া মাত্র তারা নির্যাতন চালায়। স্থানীয় বাসিন্দা সুধীর চন্দ্র দাস, চন্দনা রানী দাস ও করুনা বালা দাস বলেন, এমন অত্যাচার করলে আমরা ধর্ম পালন করব কিভাবে। পুলিশ ও নেতারা আমাদেরকে সাহায্য করে না। ভারত চলে যাওয়া ছাড়া আমাদের কোন উপায় নেই। অভিযুক্ত কুনু মিয়া বলেন, সব অভিযোগ মিথ্যা। আমি জুয়া খেলিনি। কাউকে মারধরও করিনি।

সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) শহিদ মিয়া বলেন, ঘটনার পর আমি সেখানে গিয়েছিলাম। স্থানীয় দফাদার ও শাহবাজপুর ফাঁড়ির পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছি সেখানকার হিন্দুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply