নাঙ্গলকোটে জামায়াতে ইসলামীর দায়িত্বশীলদের সমাবেশ

জামাল উদ্দিন স্বপন :

নাঙ্গলকোট উপজেলা জামায়াতে ইসলামী দায়িত্বশীলদের সমাবেশ শুক্রবার ডিগ্রী কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা জামায়াতে ইসলামী আমির এ্যাডভোকোট এ জে এম সালেহউদ্দিন খন্দকারের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রব। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা মহানগরী সহকারী সেক্রেটারী মাওলানা আবদুল হালিম, কুমিল্লা শহর আমীর কাজী দ্বীন মোহাম্মদ, কুমিল্লা জেলা দক্ষিণ নায়েবে আমীর সামছুল হক মজুমদার। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ডিভাইন গ্র“পের চেয়ারম্যান ডঃ দেলোয়ার হোসেন, আমেরিকা প্রবাসী মাওলানা আবদুল হক, এ এস এম গোলাম কবির ভুঁইয়া, উপজেলা নায়েবে আমীর মাষ্টার আবদুল করিম প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার আমাদেরকে জনগন থেকে বিচ্ছিন্ন করতে এবং ইসলামী আন্দোলন নির্মূল করতে চেয়েছিল। শত- শত মিথ্যা মামলা এবং মার্ডার মামলা পর্যন্ত প্রত্যাহার করছে। কিন্তু আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিচ্ছে। আমরা মামলাকে ভয় করি না। আমাদের গণভবন , সংসদ ভবন দখল করার ইচ্ছা নাই। আমাদের একটাই উদ্দেশ্য আখেরাতের আসন দখল করা। আমাদের দলের প্রতিষ্ঠাতাকে ফাঁসি দিতে ছেয়েছিল। কিন্তু তদানিন্তন পাকিস্তান সরকার তাকে মুক্তি দিয়েছে। এখন যুদ্ধাপরাধ বিচারের নাম করে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে আমাদের নেতাদের বেইজ্জত করতে চাচ্ছে। আমাদের বিশ্বাস তাদের ইজ্জত ভুলন্টিত হয়েছে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের বাদী, প্রসিকিউর, স্বাক্ষী সব মিথ্যা। আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটন বলেছেন, আপনারা যে ধরনের বিচার করছেন, আন্তর্জাতিকভাবে তা গ্রহণযোগ্য নয়। যুদ্ধাপরাধ বিচার আইন আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে হবে। বর্তমান সরকার সব জায়গায় ব্যার্থ । এই বিচারে ও তারা ব্যার্থ হবে।

সরকার জনগনকে ১০ টাকা কেজি ধরে চাউল খাওয়ানোর কথা বলেছিল। কিন্তু এখন চাউলের কেজি ৫০ টাকা। বর্তমানে ও এম এসের চাউলের জন্য লাইন ধরতে হয়। গোটা জাতিকে ভিক্ষুক বানানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী ঘরে-ঘরে ডিজিটাল বাংলাদেশ করার কথা বলছে। কিন্তু তাদের শরীক এবং দলীয় নেতাকর্মীরাই বলছেন, বাংলাদেশ এখন বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তাদেরকে জনগনের নিকট কৈপিয়ত দিতে হবে এবং তারা বলছে দ্রব্যমূল্য পূর্বের তুলনায় ১০গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিন দেশে খুন, ডাকাতি, রাহাজানিতে ভরে গেছে। এমপির বাড়িতে ডাকাতি হচ্ছে, মন্দিরে চুরি হচ্ছে, এমপির মেয়ে অপহরণ হচ্ছে। অথচ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি আগের ছেয়ে ভালো। তারা ৫ম সংশোধনী বাতিল করে ৭২ এর সংবিধানে ফিরে যাবার পরিকল্পনা করছেন। ধর্মহীন শিক্ষানীতির মাধ্যমে দেশকে ধর্মহীন করা হচ্ছে। তারা ভারতকে মংলা, চট্রগ্রাম, আশুগঞ্ছ বন্দর এবং করিডোর দিচ্ছে। বি ডি আর বিদ্রোহ ঘটনার নাম করে প্রতিরক্ষা বাহিনীকে দুর্বল করছে। তারা বাংলাদেশের মানচিত্র বদল করে বাংলাদেশেকে ভারতের একটি অঙ্গরাজ্য বানিয়ে, আমাদের প্রধানমন্ত্রী ভারতের মূখ্যমন্ত্রী হতে চাচ্ছেন। তারা অনেক কিছু বদল করেছেন। কিন্তু মন বদল করতে পারেন নাই। তিনি দয়িত্বশীলদের ইসলামী আন্দোলনের পক্ষে সক্রিয়ভাবে কাজ করার জন্য জোরালো আহবান জানান।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply