কুমিল্লার লাকসামে পুকুর ভরাটের মহোৎসব :প্রশাসনের ভূমিকা রহস্যজনক

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী,কুমিল্লা :
কুমিল্লা লাকসাম পৌরসভায় চলছে পুকুর-ডোবা ভরাটের মহোৎসব। পুকুর-ডোবা ভরাট হয়ে যাওয়ায় পৌরবাসী জলাবদ্ধতাসহ মারাত্মক পরিবেশ বিপর্যয়ের মুখে। একশ্রেণীর প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা ফসলি জমি, পরিবেশবান্ধব দিঘী, ডোবা, নীচু জমিসহ জলাশয়সমূহ। অগ্নিকান্ডসহ নানা সময়ে পুকুর-ডোবার পানি দিয়ে চাহিদা মেটানো হলেও এগুলো ভরাট হয়ে যাওয়ায় সামান্য বৃষ্টি-বাদলে বাড়িঘর, রাস্তাঘাট প্লাবিত হবে। এতে জনগণের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করবে। পরিবেশ রক্ষায় সরকারের কোনো উদ্যোগই এখানে কাজে আসছে না। কিছু অসাধু আইনশৃংক্ষলা রক্ষাকরী কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগ সাজসে রাজঘাট বেপারীপাড়ার শত বছরের পুরনো এ পুকুরটি প্রায় ৮৫ ভাগ ভরাট করে ফেলেছে স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা। এ কাজে নিয়োজিতদের সরকার ঘোষিত ২ বছরের জেল কিংবা ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিষয়টি ভূমিদস্যুরা কেয়ারই করছে না।

পৌরসভার রাজঘাট বেপারীপাড়ার শতবর্ষী ‘বড় পুকুর’ পাড়ে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুকুরটি প্রায় ৮৫ ভাগ ভরাট করে ফেলেছে স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা। এতে ওই পাড়ার সহস্রাধিক বণিআদম আগামী বর্ষী মওসুমে বন্যা-জলাবদ্ধতার শিকার হবে। পুকুরটি ভরাট হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি সরার আর কোনো ব্যবস্থা রইলো না। তাছাড়া, এখানে ড্রেনেজ ব্যাবস্থা না থাকায় পয়ঃ ও পানি নিস্কাশনে দেখা দিয়েছে মারাত্মক জটিলতা। অনেকের ঘরের সামনেই ময়লা পানি জমে থাকায় খোস-পাচরা, ছোঁয়াছে রোগসহ নানাবিধ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিচ্ছে। জানা গেছে, সদ্য অনুষ্ঠিত লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী সুভাষ বনিক, বিএনপি নেতা হুমায়ুন পারভেজ, সাদেক হোসেন, মাষ্টার মোস্তফাসহ সরকার দলীয় কতিপয় লোকজন পুকুরটি সামান্য দামে কিনে নেয়। এটি ভরাট শেষে প্লট তৈরী করে আকাশছোঁয়া মূল্যে বিক্রি করবে।

ভরাটকৃত অন্যান্য পুকুরগুলোর মধ্যে রয়েছে, পশ্চিমগাঁও গাজী শোহোদা’র মাজারের অদূরে জোড়পুকুর, নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজ সংলগ্ন পশ্চিম পার্শ্বের পুকুর, বড় নুর পুকুর, রাজঘাটের ছোট পুকুর, মুন্সিরপুকুর, পূর্ব সাহাপাড়ার কয়েকটি পুকুর, দক্ষিণ সাহাপাড়ার ডাঃ মনিন্দ্র দেবনাথের পুকুর, লাকসাম ফায়ার সার্ভিসের সামনের পুকুর, লাকসাম উত্তর বাজারের আমেনা মেডিকেল সেন্টারের পিছনের পুকুর, পশ্চিমগাঁও মুড়া দরগাহর সামনের পুকুর।

পুকুর ভরাট বন্ধের ব্যাপারে লাকসাম পৌরসভা চেয়ারম্যান আলহাজ মফিজুর রহমান বলেন, পুকুর ভরাটের বিষয়টি লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম মামুনুর রশিদ ও লাকসাম থানাকে অবহিত করেছি।

লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম মামুনুর রশিদ এ ব্যাপারে জানান, পুকুর ভরাট হচ্ছে এমন কোন অভিযোগ আমার কাছে নেই। পৌরসভার রাজঘাট বেপারীপাড়ায় একটি পুকুর ভরাটের খবর জানার পর ভরাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানান, পুকুর ভরাট ব›ধ করে দেয়া হয়েছে। নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রাত-দিন পুকুর ভরাট করলেও প্রশাসন না জানার ভান ধরে থাকেন। অচিরেই এ পুকুর ভরাট বন্ধ না করলে জলাবদ্ধতাসহ মারাত্মক বিপর্যয়ের মুখে পরবে লাকসাম উপজেলা সহ আশ-পাশ এলাকা।

Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply