আশুগঞ্জ সার কারখানায় সারের বস্তায় ওজনে কম : সরবরাহ বন্ধ

লিটন চৌধুরী (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ১মার্চ :

আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ডিলারদের মাঝে সরবরাহ করা ইউরিয়া সারের প্রতি বস্তায় ৪/৫কেজি করে কম পাওয়া যাচ্ছে।এসব সারের বস্তা ডিলাররা সরবরাহ করে যেমন বিপাকে পড়েছে তেমনি প্রতারিত হচ্ছে কৃষকরা। মঙ্গলবার সকালে সার সরবরাহ নিতে গিয়ে প্রতি বস্তায় ৪/৫ কেজি ওজন কম পেয়ে সার সরবরাহ নেয়া বন্ধ করে দেয় ডিলাররা।এ ঘটনায় কারখানায় তোলপাড় শুরু হয়। খবর পেয়ে আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থলে আসলেও তিনি কোন আলোচনা বা সিদ্ধান্তের কথা না জানিয়ে কারখানার অফিসারদেরকে শুধু ধমক দিয়ে ১০ মিনিটের মধ্যে কারখানা ত্যাগ করেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়, আশুগঞ্জ সার কারখানার অধীনস্থ ৬টি জেলার প্রায় ৯শত ডিলারের মাঝে তাদের মাসিক বরাদ্দের সার কারখানার গুদাম থেকে সরবরাহ দেয়া হয়ে থাকে।গত কয়েক মাস যাবত কারখানা গুদাম থেকে সরবরাহকৃত সারের প্রায়ই বস্তাতেই ওজনে ৪/৫কেজি করে কম পাওয়া যাচ্ছে। এ ব্যাপারে সার সমিতি নেতারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগত করেও এর কোন প্রতিকার পাননি। আজ মঙ্গলবার সকালে কারখানা থেকে কম ওজনের বস্তা সার সরবরাহ দেয়া শুরু করলে ডিলার প্রতিনিধিরা প্রতিবাদ জানিয়ে সার ট্রাকে লোড নেয়া বন্ধ করে দেয়।খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা সার সমিতির সভাপতি নাজিরুজ্জামান ভূঁইয়া ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জালাল উদ্দিন ডেলিভারী পয়েন্টে ছুটে আসেন এবং উর্ধতন কর্মকর্তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করনে। এই ঘটনার জন্য ডিলাররা অর্ধ দিবস কারখানা থেকে সার সরবরাহ বন্ধ রাখে।পরে সার সমিতির নেতৃবৃন্দদের নিয়ে কারখানার মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) মোস্তাফিজুর রহমান, মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) মো: জিন্নত আলী, মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মো: ফরিদ উদ্দিন তাৎক্ষণিক আলোচনায় বসেন। মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) মো: জিন্নত আলী জানান, গত রাতে পরিমাপ যন্ত্রের ক্রটির কারণে বস্তায় ৪/৫ কেজি করে কম হয়েছে। ডেলিভারী পয়েন্টে যারা ডিউটি ছিল তারা ওজন যাচাই না করে সারের বস্তা কেন করা হল এর সন্তোষজনক কোন জবাব উপস্থিত কর্মকর্তাগণ দিতে পারেননি । এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন জানান, কারখানায় প্রায়ই সারের বস্তায় ওজন কম পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু এতদিন কর্তৃপক্ষ তা বিশ্বাস করেনি। বস্তায় ওজন আর যেন কম না হয় এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছে। এ ব্যাপারে কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বাবু সুভাস সাহা জানান,বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply