আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ষ্টোররুম ভেঙ্গে ৮ লাখ টাকার ক্যাবল গায়েব:৩জন সাময়িক বরখাস্ত

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৪.০২.১১ :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান ষ্টোর রুম থেকে প্রায় ৮লাখ টাকার ক্যাবল রহস্যজনক ভাবে গায়েব হয়ে গেছে। ষ্টোর রুমের রেজিষ্ট্রি খাতা অনুযায়ী মালামালেও রয়েছে ব্যাপক গরমিল। এঘটনায় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বৃহস্পতিবার সকালে এক দাপ্তরিক আদেশে ষ্টোর অফিসার ও ২জন নিরাপত্তাকর্মি সহ ৩জনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।থানায় করা হয়েছে চুরির মামলা।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিরাপত্তা বিভাগ ও মামলার বিবরনে জানাযায়,আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রশাসনিক ভবনের এক‘শ গজ সামনে প্রধান ষ্টোর রুম।গত ১৮ ফেব্রয়ারি রাতে ষ্টোর রুমের শাটারের প্রধান গেইট ভেঙ্গে কে বা কারা ১৮৩মিটার উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ক্যাবল ও ৬৪ মিটার কপার কন্ডাক্টর চুরি করে নিয়ে গেছে।যার আনুমানিক মুল্য প্রায় ৮ লাখ টাকা।এ ঘটনায় গত ১৯ ফেব্র“যারি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ-ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা ও শৃংখলা)আব্বাস উদ্দিন আহম্মেদ বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে এবং আজ বৃহস্পতিবার সকালে ব্যবস্থাপনা পরিচালকে দাপ্তরিক নির্দেশে ষ্টোর অফিসার মোঃ জসিম উদ্দিন ও নিরাপত্তা সুপারভাইজার নাজমুল হাসান ও নিরাপত্তাকর্মি মীর আলমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের একাধীক কর্মকর্তা কর্মচারি জানান কোন কর্মকর্তার যোগসাজস ও নিরাপত্তা বিভাগের গাফলতি ছাড়া ষ্টোর রুম থেকে ক্যাবল ও কপার কন্ডাক্টর চুরি করা কিছুতেই সম্ভব নয়।এছাড়া গত বছরের ২৫ জানুয়ারি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সুইচ ইর্য়াড এলাকা থেকে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা মূল্যের ১‘শ মিটার উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ক্যাবল চুরি হয়েছিল।থানায় মামলাও হয়েছে কিন্তু এক বছরেও পুলিশ মালামাল উদ্বার কিংবা কাউকে গ্রেফতারও করতে পারেনি।এসব বিষয়ের কারনে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে শংকিত কর্মকর্তা-কর্মচারি ও সাধারণ শ্রমিকরা।

এ ব্যাপারে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ-ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা ও শৃংখলা)আব্বাস উদ্দিন আহম্মেদ জানান চুরির বিষয়টি রহস্যজনক।প্রাথমিক পর্যবেক্ষনে ষ্টোরের লেজার ও রেকর্ডপত্রে কিছু অনিয়ম পরিলক্ষিত হয়েছে।ডিউটিরত আনসারদের সাথে চোরদের যোগসাজস থাকার বিষয়টিও একেবারে উড়িয়ে দেয়া যায় না। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল খালেক জানান ষ্টোরের শাটার ভেঙ্গে ক্যাবল চুরির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন এ ব্যাপারে ৩জনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।পুলিশি তদন্তের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জাফর চৌধুরী জানান মামলার তদন্ত চলছে।ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তরা তদারকি করছেন।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply