সরাইলে তৃণমুল পর্যায়ে চাঙ্গা হচ্ছে জাতীয় পার্টি: এককভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় তৃণমুল পর্যায়ে জাতীয় পার্টি চাঙ্গা হয়ে উঠছে। কর্মী সংগ্রহে মাঠে নেমেছেন দলের ত্যাগী নেতারা। মহাজোটের অন্যতম শরিক দল জাতীয় পার্টির তুলনায় স্থানীয় আ’লীগ অনেক শক্তিশালী হওয়ায় নানা বিষয়ে চলছে টানাপোড়েন। সুযোগে আ’লীগের সুবিধা বঞ্চিতদের দলে টানছে জাতীয় পার্টি। ক্ষমতাসীনদের স্বজনদের কাছে টানায় জাতীয় পার্টির মাঠ পর্যায়ের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের একটি গ্রুপ দারুণভাবে ক্ষুব্ধ নিজ দলের উপর। দলের বিভিন্ন কর্মসূচীতে মাঝে মধ্যে বেঁকে বসছেন তারা। সুবিধা ভাগাভাগিতে জাতীয় পার্টি সব সময় পিছিয়ে থাকবে কেন এমনটাই অভিযোগ তাদের। দলটির একাধিকসূত্র জানায়, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রিয় সহ-সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা তার নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) তৃণমুল পর্যায়ে দলের সাংগঠনিক তৎপরতা জোরদার করতে ওয়ার্ড পর্যায়ে কর্মী সংগ্রহের পাশাপাশি কমিটি গঠনে কাজ করছেন। ইতিমধ্যে বেশক’টি ইউনিয়ন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। চলতি মাসে ইউনিয়ন পর্যায়ে জাপা’র সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তৃণমুল পর্যায়ে অন্যান্য রাজনৈতিকদলের বেশকিছু নেতা-কর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। রাজনীতিতে নতুন মেরুকরনে এসব নেতা-কর্মীরা অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধার আহবানে সাড়া দিয়ে জাপা’য় যোগদান করেছে বলে ত্যাগী নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন। তারা বলেন, পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ ঘোষণা দিয়েছেন, জাতীয় পার্টি আগামীতে এককভাবে নির্বাচন করবে। তাই তৃণমুল পর্যায়ে দলকে সংঘঠিত ও নির্বাচনী এলাকায় জাতীয় পার্টির অবস্থান আরও মজবুত করতেই এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আগামী ইউপি নির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নিবে এমন ইঙ্গিতও দিয়েছেন দলের একাধিক নেতা। বিষয়টি মাথায় রেখে দলকে সংঘটিত করা হচ্ছে। কর্মী সংগ্রহে নেতারা তৃণমুল পর্যায়ে দৌড়ঝাঁপ চালিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ূন কবির বলেন, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠনের কাজ প্রায় সম্পন্ন। অচিরেই সম্মেলনের মাধ্যমে ওইসব কমিটি অনুমোদন পাবে। উপজেলা জাপা’র ত্যাগী নেতা ও কালীকচ্ছ ইউনিয়ন কমিটির প্রস্তাবিত সভাপতি মো. রতন মিয়া বলেন, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা এমপির পরামর্শ ও দিকনির্দেশনায় আমরা তৃণমুল পর্যায়ে দল গুছিয়ে ফেলেছি। তিনি বলেন, অন্যান্য রাজনৈতিক দল থেকেও বহু নেতা-কর্মী জাপায় যোগদান করেছেন। সরাইলে জাতীয় পার্টি জোরদার হচ্ছে। ওদিকে জাতীয় পার্টির অন্য একটি সূত্র জানায়, ক্ষমতা হাতে পেয়ে যেভাবে আত্মীয়করন ও স্বজনপ্রীতি শুরু হয়েছে ভবিষ্যতে কিভাবে কাজ করব তা ভেবে দেখতে হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাপার কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা তার নির্বাচনী এলাকায় দল গোছানোর কথা স্বীকার করে বলেন, সামান্য কিছু কাজ বাকি রয়েছে। আগামী ১৫ এপ্রিল উপজেলা পর্যায়ে সম্মেলন করার চিন্তা রয়েছে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী দেয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মহাজোটের সাথে সমঝোতা হলে আমরা কোন প্রার্থী দেব না। সমঝোতা না হলে শুধু চেয়ারম্যান পদে-ই নয় উপজেলার প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে মেম্বার পদেও দলীয় প্রার্থী দেব।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply