নিহত ছাত্রলীগ নেতাদের স্বরনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের উদ্যোগে শোকসভা ও মিলাদ মাহফিল

লিটন চৌধুরী,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১২.০২.১১ :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের নব নির্বাচিত সংসদ সদস্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্ত সচিব ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আলহাজ্ব র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন, ১২টি তাজা প্রাণ সম্পন্ন তরুণ ছেলেদের মৃত্যুতে আমি মর্মাহত। তাদের মৃত্যুতে ছাত্রলীগের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে তা কোনদিন পূরণ হবে না। তিনি আরো বলেছেন, আমাদের দেশের সড়কগুলি নিরাপদভাবে চলাচল অনুকূলে নয়, এগুলোর ব্যাপক সংস্কার হওয়া উচিত। প্রতিনিয়তই এ ধরনের মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনা অনেক মা-বাবার বুক খালি করে নিচ্ছে। তিনি শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজে আয়োজিত ৪ঠা ফেব্রুয়ারি জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফেরার পথে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১১ ছাত্রলীগ নেতাসহ ১২ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুতে এক শোকসভা ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের লেকচার থিয়েটার ভবনে এ সভায় অধ্যক্ষ প্রফেসর কাজী মোঃ মোস্তফা জালালের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বশিরউল্লাহ জুরু, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডঃ সৈয়দ এমদাদুল বারী, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মেজর (অবঃ) জহিরুল হক খান বীর প্রতীক, সহ সভাপতি মোঃ হেলাল উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক আল মামুন সরকার, সুজন জেলা সভাপতি প্রফেসর মুখলেছুর রহমান খান, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর প্রফুল্ল চন্দ্র দেবনাথ, প্রমুখ। নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন মেহেদী আলম শান্ত’র বাবা মোঃ শাহআলম, আরিফুল ইসলাম বাবুর পিতা আব্দুল মমিন মিয়া, তানভীরের বাবা আব্দুল আউয়াল, লিয়েনের বাবা মোবারক হোসেন সরকার। শোকসভা শেষে দোয়া মাহফিলে মোনাজাত পরিচালনা করেন হযরত মাওলানা আনোয়ারুল বারী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন ইসলামের ইতিহাস সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ মিজানুর রহমান শিশির।




Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply