তিতাস উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত : এডিবি’র ১ লক্ষ ২৬ হাজার টাকা আত্মসাৎ

নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিনুল ইসলাম
শনিবার ৩০ জানুয়ারী রবিবার কুমিল্লার তিতাস উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় ঘুণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ঘর-বাড়ী নির্মাণ বাবদ এডিবি’ খাত থেকে বরাদ্দ ১ লক্ষ ২৬ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নাহার পারভীন এডিবি খাত থেকে বরাদ্দকৃত ১ লক্ষ ২৬ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে কিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিনুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, উক্ত টাকা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মজিবুর রহমানের নিকট জমা আছে। উক্ত টাকা বিতরন কাজে সম্পৃক্ত কর্মকর্তা ও ইউপি চেয়ারম্যানদের নিয়ে পুনরায় একইকক্ষে দরজা বন্ধ করে ইউএনও ও উপ-সহকারী প্রকৌশলীকে মুখোমুখি করালে বরাদ্দকৃত টাকা ইউএনও আমিনুল ইসলামের নিকট জমা আছে বলে তিনি স্বীকার করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, ২০০৯-২০১০ অর্থ বছরে এডিবি খাত থেকে ঘুণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ সাতানী ইউনিয়নের অনুকূলে (ভ্যাট ছাড়া) ৫০ হাজার ৫ শত এবং জগতপুর ইউনিয়নের অনুকূলে ৭৬ হাজার ৪ শত টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। উক্ত টাকা অদ্যবধি ইউএনও বিতরণ না করে নিজের কাছে রেখে দেন। তিনি আরো জানান, উক্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ ও টাকা আত্মসাতের প্রমাণ আছে যা অচিরেই তিতাসবাসীর সামনে প্রকাশ করা হবে। উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন নাহার পারভীন জানান, উপজেলার বিভিন্ন সভায় অংশগ্রহণের জন্য ইউএনও আমাকে বিনা নোটিশে সংশ্লিষ্ট সভা আরাম্ভ হওয়ার এক/আধা ঘন্টা পূর্বে মোবাইলের মাধ্যমে প্রায় অবগত করেন এবং সভায় অনুপস্থিত থাকলে সম্মানী ভাতা বন্ধ রাখা ও চেকে স্বাক্ষর করবেন না বলে হুমকি দিতেন। গত ২৩ ডিসেম্বর মহিলাদের সেলাই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম উদ্বোধনের বিষয়ে ইউএনও রুমে আলাপকালে তিনি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুন্সি মজিবুর রহমানের সম্মুখে একই আচরণ করেন এবং ভাতা ও চেক বন্ধ করে দেয়ার জন্য বলেন। বিষয়টি ডিসেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত সভার কার্যবিবরণীতে আনা হলে ইউএনও কার্যবিবরণীর চতুর্থ পাতায় এর সত্যতা নেই বলে নিজে কলম দ্বারা লিখে দেন। তবে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুন্সি মজিবুর রহমান এমন অসৌজন্যমূলক আচরণের কথা স্বীকার করেন।

উক্ত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবদুর রশীদ মোল্লা, উপজেলা প্রকৌশলী শাহজাহান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল বাশার, উপজেলা কৃষি অফিসার ড. আঃ ছালাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ারা চৌধুরী, উপজেলা মৎস্য অফিসার আমিনুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাচন অফিসার সিদ্দিকুর রহমান, উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শাহানা আফরোজ, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা ফেরদৌসী, সমবায় অফিসার মানুষী ইসলাম, সমাজসেবা অফিসার ফেরদৌসী আক্তার, ভেটেনারী সার্জন রুহুল আমিন, সাতানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ.এইচ.এম সালাউদ্দিন সরকার, কড়িকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোবারক হোসেন ভূঁইয়া, কলাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাজী মোহাম্মদ আলী, ভিটিকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, নারান্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান আক্তার, জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন আখন্দ, মজিদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক মিয়া সরকার ও ব্র্যাক প্রতিনিধি নাজনীন আক্তার প্রমূখ।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply