লাকসামে মেয়র প্রার্থী পরিবর্তনে বিক্ষুদ্ধ আঃলীগ নেতা কর্মীরা

জামাল উদ্দিন স্বপন :

লাকসাম পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগদলীয় প্রার্থী হিসেবে শুক্রবার বিভিন্ন সংবাদপত্রে হাজী আবুল কাশেমের নাম প্রচার হওয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে।
গত ১৫ ডিসেম্বর দলীয় কার্যালয়ে তৃনমূল নেতাদের মতামতের উপর ভিত্তি করে দলের আহবায়ক মোঃ তাজুল ইসলাম এম.পি যুবলীগ সভাপতি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরার নাম ঘোষনা করেন।
গতকাল বিভিন্ন সংবাদপত্রে হাজী আবুল কাশেমের নাম প্রচার হওয়ায় বিক্ষুদ্ধ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীরা জানান, হাজী আবুল কাশেম ২০০১সালে সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রকাশ্য বিরোধিতা করে বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে তাকে জয়লাভ করায়। এরপর তিনি বিএনপির সাথে আতাত করে দলের নেতাকর্মীদের হামলা মামলা করে নির্যাতন চালায়। জাতীয়তাবাদী আঃলীগ নেতা নামে খ্যাত ওই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে হিন্দুসহ আঃলীগ নেতাদের জায়গা দখল, আবাসিক হোটেল দিয়ে নারী ব্যবসা, আদম ব্যবসা এবং সম্প্রতি গ্যাস চুরিসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও তিনি স্থানীয় ভাবে এ এলাকার নন।
বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের পক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক তাজুল ইসলাম চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা সুভাষ ভৌমিক, এডভোকেট আবু তাহের জানান ১৯৯৮ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি দলের সাথে কোন সম্পর্কই রাখেননি। বর্তমানে উপজেলা আঃলীগে তার কোন সদস্য পদও নেই। সাধারন নেতাকর্মীদের জোর দাবী অনতিবিলম্বে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যহার করে তৃনমূল নেতাকর্মীদের জনপ্রিয় নেতা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এডভোকেট ইউনুছ ভূইয়া অথবা যুবলীগ সভাপতি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরার নাম ঘোষনা করা হোক।
উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক আবুল খায়ের, স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি কাউন্সিলর শাহআলম, ছাত্রলীগ সভাপতি দলিলুর রহমান মানিক জানান, তৃনমূল নেতাদের মতামত উপেক্ষা করে পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে বিকল্প কোন প্রার্থী দিলে এ পরাজয়ের জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের দায়ী থাকতে হবে।

Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply