চৌদ্দগ্রাম কবর থেকে লাশ চুরির চেষ্টা

কুমিল্লা, ২৫ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :
চৌদ্দগ্রামে কবর থেকে লাশ চুরির চেষ্টা করেছিল দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উপজেলার আলকরার শিলরী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের শিলরী গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে জাহাঙ্গীরের সাথে ৮ বছর আগে চিওড়া গ্রামের মৃত মানিক মেম্বারের মেয়ে নাজমা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নাজমা কিছু দিন স্বামীর বাড়িতে থাকলেও পরে সে নিয়মিত তার বাবার বাড়িতে বসবাস করে আসছিল। এরই মাঝে তাদের সংসারে প্রীতি নামে এক মেয়ে ও বাবু নামে এক ছেলে জম্ম নেয়। গত ১৫ ডিসেম্বর (বুধবার) রাতে স্ত্রী নাজমার সাথে স্বামী জাহাঙ্গীরের পারিবারিক বিরোধ নিয়ে কথা কাটা-কাটি ও হাতা-হাতির একপর্যায় শুশ্বর বাড়ির অন্য লোকজনসহ জাহাঙ্গীরকে ব্যাপক মারধর করে জোরপূর্বক অতিরিক্ত ঘুমের ঔষধ খাওয়ালে সে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে প্রথমে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আশংকাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থার তার মৃত্যু হয়। পরে স্ত্রী নাজমা ও শুশ্বর বাড়ির লোকজন প্রচার করে জাহাঙ্গীর মানষিক (পাগল) রোগী ছিল এবং বিষপান করে আত্নহত্যা করে। ঔইদিনই (বৃহস্পতিবার) সন্ধায় একটি টেক্সী যোগে জাহাঙ্গীরের লাশ তার বাড়ি শিলরীতে পাঠিয়ে দেয়। এই ঘটনায় নিহত জাহাঙ্গীর হোসেনের বাবা জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে গত ২১ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) কুমিল্লার আমলী আদালত নং-৪ এর ম্যাজিষ্ট্রেট কামাল উদ্দিনের আদালতে নিহত জাহাঙ্গীরের স্ত্রী নাজমা বেগম, তার ভাই সোহেল ও রুবেল কে আসামী করে হত্যা মামলা (আদালত ক্রমিক নং ২৭২/১০) দায়ের করলে আদালত চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মামলাটি নথিভূক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিলে মামলাটি চৌদ্দগ্রাম থানায় নথিভূক্ত করে। যার নং-২০, তারিখ-২৩/১২/২০১০ইং। তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই মনির হোসেন ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে লাশ উত্তোলন করার অনুমতি চেয়ে গত বৃহস্পতিবার আদালতে আবেদন জানিয়েছেন।

এদিকে হত্যা মামলা দায়েরের খবর শুনে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ১০/১২ জনের দুর্বৃত্ত দল একটি পিকআপ যোগে শিলরীতে গিয়ে লাশ চুরির চেষ্টা করলে গ্রামের লোকজন টের পেয়ে ধাওয়া করলে তারা দ্রুত পালিয়ে যায়।

এই ব্যাপারে মামলার তদন্তাকারী কর্মকর্তা এসআই মনির হোসেন জানান, আদালতের নির্দেশে মামলাটি নথিভূক্ত করে তদন্ত শুরু করেছি এবং ময়নাতদন্তের জন্য জাহাঙ্গীরের লাশ কবর থেকে উত্তোলনের জন্য আদালতের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছি। লাশ চুরির চেষ্টা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এমন সংবাদ শুনে পুলিশের একাধিক টহল গিয়েছিল। তবে কাউকে পাওয়া যায়নি।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply