ঢাকা – চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেনে রূপান্তরের কাজ শুরু :উচ্ছেদ অভিযান

নিউজ ডেস্ক, ২২ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চার লেন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য কুমিল্লা দক্ষিণ অংশে গতকাল থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। কুমিল্লার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জাকির হোসেন ও আজিজুর রহমানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সওজের জায়গায় গড়ে ওঠা ৫ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেন।

সুত্র জানায়, দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগ মাধ্যম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। কিন্তু এই গুরুত্বপূর্ন সড়কটি মাত্র দুই লেনের হওয়ায় বিগত পাঁচ-ছয় বছর যাবৎ সড়ক দুর্ঘটনার পাশাপাশি প্রায় প্রতি দিনই যানযট লেগে থাকে । বিগত বিএনপি সরকারের সময় সড়কটিকে চার লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হলেও ঢাকা থেকে দাউদকান্দি টোল প্লাজা পর্যন্ত করার পর সরকার পরিবর্তনের পর আর কাজ এগোয়নি । বিএনপি সরকারের সময় একনেকের সভায় বাকী সড়কটিও চার লেনে উন্নীত করার জন্য অর্থও বরাদ্দও দেয়া হয় ।

উল্লেখ্য গত টার্মে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর ২০০৪ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কুমিল্লা টাউন হলে এক জনসভায় এই সড়কটিকে চার লেনে রূপান্তরিত করার অঙ্গীকার করেন । সেই মোতাবেক সকল কাজ গুছিয়ে নিয়ে আসা হলেও তত্বাবধায়ক সরকারের সময়কালে এই কাজ আর এগোয়নি । বর্তমান আওয়ামিলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর পুনরায় সড়কটির উন্নয়নের দাবী উঠলে সরকার নতুন করে এর কার্যাদেশ জারি করে । সেই অনুসারে ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে সড়কটির চার লেনের কাজ শুরু হবার কথা থাকলেও এতদিন তা আলোর মুখ দেখেনি । অবশেষে যখন কাজ শুরুর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, এতদিনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে এই সড়কে চলাচল কারী যাত্রীরা ।

ইতিমধ্যে মহাসড়কের দাউদকান্দির টোল প্লাজা থেকে চট্টগ্রাম নগরের সিটি গেইট পর্যন্ত ১৯২ কিলোমিটার সড়ককে ৪ লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হয়েছে। পুরো সড়কের পশ্চিম পাশ ঘেঁষে একই প্রস্থের একটি রাস্তা নির্মাণ করা হবে। পুরো রাস্তার প্রস্থ হবে ৮৭ ফুট। রাস্তার মাঝামাঝি ৫ মিটারের একটি আইল্যান্ড থাকবে। এর দুই পাশে ২ টি করে ৪ টি লেন থাকবে।

সওজ সুত্রে জানা গেছে, ২০০৭ সালের শেষের দিকে প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্যে একটি জরিপ শুরু করা হয়। যা শেষ হয় ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে। জরিপ রিপোর্টে বলা হয়েছে, ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত নতুন রাস্তাটিতে তিনটি মেগা ব্রিজ, দশটি বড় ব্রিজ, ৪৬ টি ছোট ব্রিজ, দুই’শ কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। সড়কটির দু’পাশ মিলিয়ে ছয়টি আন্তঃসংযোগ রাস্তা, তিনটি ফ্লাইওভার, সাতটি রোডওভার ব্রিজ স্থাপন করা হবে। ছোট গাড়ীর জন্য ৭২ টি ও পথচারী পারাপারের জন্য ৩২ টি আন্ডারপাস থাকবে। পুরো সড়কটি পাঁচটি ভাগে ভাগ করে ছয়টি টোল প্লাজা নির্মাণ করা হবে। এছাড়া প্রয়োজন অনুযায়ী ফুয়েল ষ্টেশন, সার্ভিস রোড, ফুডকোর্ট, মসজিদ, চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র, টয়লেট, পার্কিং সুবিধা, সিসিটিভির ব্যবস্থা রাখা হবে।

প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার সকাল থেকে কুমিল্লা দক্ষিন অংশে আদর্শ সদর উপজেলার আলেখারচর, সদর দক্ষিনের পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড, সুয়াগাজী বাজার, চৌদ্দগ্রামের মিয়াবাজার এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের এক কর্মকর্তা জানান, সরকারের শীর্ষ মহল চায় বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হোক। আমরাও সে হিসেবে দ্রুত কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ককে চার লেন করার জন্য ১৬৫৫ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply