কুমিল্লার খ্যাতনামা স্কুলের শিক্ষার্থীরা ভয়ঙ্কর গ্রুপিং’এ বিভক্ত

কুমিল্লা, ২১ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :

কুমিল্লা শহরের খ্যাতনামা কয়েকটি স্কুলের ছাত্ররা এখন বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্ত । এলাকা ভিত্তিক রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় ছাত্রনেতাদের প্রত্যক্ষ মদদে এই সকল গ্রুপের সৃষ্টি । বিভিন্ন এলাকায় গড়ে উঠা এইসকল গ্রুপের হয়ে ছাত্ররা এখন প্রায় প্রতিনিয়তই দ্বন্দ সংঘাতে জড়িয়ে পড়ছে । এইসকল কর্মকান্ডে কোন কোন সময় অস্রের মহরাও লক্ষ করা যায় ।

এই কদিন আগেও শহরের বাদুরতলা মোড়ে স্কুল ছাত্রদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে এক জন আহত ও গরু জবাইয়ের ছুবিসহ গ্রেফতার হয়েছে ৩ জন। সূত্র জানায়, কুমিল্লা মডার্ন হাই স্কুলের ছাত্র বিশালকে তার প্রতিপক্ষ অন্য কয়েকটি স্কুল ছাত্রের গ্রুপ (ডেড ওয়ার্ল্ড ) আক্রমণ করলে ঘটনার সূত্রপাত । আক্রমণ প্রতিহত করতে বিশালের গ্রুপের সদস্য জুম্মন, রাফি, রাকিব ও আলিফ রামদা হাতে ছুটে আসলে ডেড ওয়ার্ল্ড প্রুপের আক্রমণকারী ছাত্ররা পালাতে গিয়ে গরু জবাইয়ের ছুরিসহ জনতার হাতে ধরা পড়ে। তারা হচ্ছে জিলা স্কুলের ১০ম শ্রেনীর ছাত্র জাহিদ রহমান হিমেল(১৫), মডার্ন হাই স্কুলের নবম শ্রেনীর ছাত্র সামস আল মুজাদ্দেদ সানি (১৪) ও জাহিদ ইবনে আতাউর বাঁধন(১৪) । সংঘর্ষের সময় রামদায়ের আঘাতে বিশাল আহত হয়। তাদেরকে কুমিল্লা কোতয়ালী থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

এইধরনের ঘটনা এখন কুমিল্লায় প্রায়ই ঘটে থাকে । ছোট খাট যেকোন ঘটনাকে কেন্দ্র করেই এই ধরনের ঘটনার সূত্রপাত হয়ে থাকে । এই প্রক্রিয়ায় কোমলমতি এই সকল ছাত্ররা সহজেই অপরাঘ প্রবনতায় জড়িয়ে পড়ছে । এলাকার বড় ভাই খ্যাত ছাত্র নেতারা প্রটেকশন দেয় বলে অনেক ঘটনাই অন্তরালে থেকে যায় । এতে মেধাবী এই ছাত্রদের দুঃসাহস আরও বৃদ্ধি পায় ।

এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে তা বিস্ফোরন মুখ আকারে আবির্ভূত হবে বলে সচেতন মহলের আশঙ্কা । কিন্তু এই প্রসাশন কিংবা কারো কোন তৎপড়তা লক্ষ করা যাচ্ছেনা । ইতিমধ্যে সামাজিক ভাবে এই কার্জক্রম রোধের বাইরে চলে গেছে বলেও কেউ কেউ মনে করেন । কারন এই সকল কিশোররা এখন কারো ধার ধারেন না ।

আমাদের সূত্র জানায় শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিস্তার লাভ করা এইসকল গ্রুপ গুলো হচ্ছে, ড্রাকুলার গ্রুপ, রিঅ্যাকশন গ্রুপ, ড্রাগন গ্রুপ, এইচ আই ভি গ্রুপ, ডেড হার্ট গ্রুপ, ডেড ওয়ার্ল্ড গ্রুপ, ডেভিল গ্রুপ ইত্যাদি । প্রতিটি গ্রুপের ফ্রন্ট লাইন নেতৃত্বে আছে এক থেকে দুই জন। এই কিশোর নেতাদের ছোট ছোট অস্ত্র ও অর্থের জোগান দিচ্ছে বিভিন্ন ছাত্র নেতারা।

নাম দেখেই অনুমেয় এগুলো কোন সুবিবেচিত কার্যক্রম নয় । কিন্তু যেকোন অনিষ্ঠ সাধনের জন্য এরা পটু । মানসিক ও শারিরিক বিকাশের এই মহিন্দ্র বয়সে কিশোরদের এই শিক্ষা সমাজ ও দেশের জন্য কখনোই মঙ্গল বয়ে আনতে পাড়ে না ।

এলাকা ভিত্তিক দ্বন্দের স্বর্গ কুমিল্লায় এই গ্রুপগুলোকে অচিরেই আইনের গেড়াকলে আটকাতে না পাড়লে ভবিষ্যতে তা আরও ভয়াবহ রূপ লাভ করবে । তাই প্রশাসনের প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপে অচিরেই এর বিনাষ সাধন অনস্বীকার্য ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply