পাঁচ দিনের সফরে খালেদা জিয়ার চিন গমন :বিমানবন্দরে বিদায় জানাতে দেয়া হয়নি নেতা কর্মীদের

নিউজ ডেস্ক, ১৮ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :

ব্যংককে খালেদা জিয়া
বিএনপির চ্যয়ারপারসন ও সংসদের বিরুধী দলের নেতা বেগম খালেদা জিয়া পাঁচ দিনের সফরে চিনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছেন । চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আমন্ত্রণে পাঁচ দিনের সফরে দুপুর পৌনে ২টায় থাই এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে খালেদা জিয়া চীনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। সফরকালে ব্যাংককে চিকিৎসাধীন অসুস্থ ছোট ছেলে আরাফাত রহমানের সঙ্গে তিনি দেখা করবেন। সেখান থেকে রবিবার সকালে বেইজিং রওনা দেবেন। সেখানে তিনি তিন দিন অবস্থান করবেন।

চীন সফরকালে খালেদা জিয়া চীনা কমিউনিস্ট পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য ও নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এছাড়া বিএনপি এবং চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করতেও তিনি মত বিনিময় করবেন।

এদিকে দলীয় নেত্রীকে বিদায় জানাতে আসা দলীয় নেতা কর্মীদের বিমান বন্দরে প্রবেশ করতে দেয়নি আইন শৃঙ্খলা বাহিনি । প্রসঙ্গত, শনিবার চীন সফরে যাওয়ার সময় বিএনপি চেয়ারপারসনকে বিদায় জানাতে আসেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, সংসদ সদস্য ও অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতারা। কিন্তু ভিআইপি লাউঞ্জে প্রবেশের আগেই তারা রাস্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বাধার মুখে পড়েন। এসময় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। এর জন্য স্পিকারকে দায়ী করেছেন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক। স্পিকার নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে পারেননি মন্তব্য করে ফারুক বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনকে বিদায় জানাতে বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহারের লিখিত আবেদন করেও সেখানে দলের সিনিয়র নেতারা প্রবেশ করতে পারেননি। ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে ১৫ দিন আগে স্পিকারকে চিঠি দেয়া হয়েছিল। তিন দিন আগে সংসদ সদস্যদের নাম দিয়ে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ দুর্ব্যবহার করেছে অভিযোগ করে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ বলেন, সরকার যেভাবে বলবে সেভাবেই চলবে বলে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়।

স্পিকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্যরা ফুটপাতে দাঁড়িয়ে থাকে আর আপনি তাদেরকে সংসদে এসে কথা বলার জন্য বলছেন। সংসদে এসে কথা বললে আপনি কোনো দিন সমস্যার সমাধান করতে পারবেন না।’ সংসদ পরিচালনায় স্পিকারের বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ এনে ফারুক বলেন, ‘সংসদ আপনার (স্পিকার) ইশারায় চলে না। আপনার হাতের ডান দিকে যিনি বসেন তার ইশারায় সংসদ চলে।’

এর আগে বিমান বন্দরের ভিআইপি লাউন্জে এক সংবাদ ব্রিফিংএ বেগম জিয়া বলেন, দেশের স্বার্থ রক্ষা ও মানুষের সমস্যা সমাধানে ব্যর্থতার দায়ে সরকারের এই মুহূর্তে পদত্যাগ করা উচিত। সরকার স্বৈরাচারী কায়দায় দেশ চালাচ্ছে মন্তব্য করে খালেদা বলেন, বিরোধী দলের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের ওপর অব্যাহত নিপীড়ন-নির্যাতনে জনগণ আজ বিক্ষুব্ধ। তাই গণতন্ত্র রক্ষায় এ সরকারের পদত্যাগ করা ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই।

সম্প্রতি গ্রেপ্তার হওয়া দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ওপর নির্যাতনের অভিযোগ করে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের ধরে যেভাবে পেটানো হচ্ছে তাতে দেশের ইমেজ নষ্ট হচ্ছে। ‘দ্রব্যমূল্য, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিতে মানুষ আজ অতিষ্ঠ’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশের এ বেহাল দশা থেকে মানুষ আজ পরিত্রাণ চায়।’

এ সফরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান, সহসভাপতি শমসের মবিন চৌধুরী, প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান, একান্ত সচিব সালেহ আহমেদ, ব্যক্তিগত সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, আলোকচিত্রী নূরউদ্দিন আহমেদ বেগম জিয়ার সফরসঙ্গি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply