হোমনা পৌরসভা নির্বাচনে অর্ধশতাধিক প্রার্থী মাঠে

নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে হোমনা পৌরসভায় নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর লবিং, গ্রুপিংয়ের পাশাপাশি ইতোমধ্যে ব্যাপক গণসংযোগ শুরু করেছেন। হাঁটে, মাঠে, চায়ের দোকানে নির্বাচনকে ঘিরে চলছে প্রার্থীদের ভালোমন্দের চুলচেরা বিশ্লেষণ। তবে দেশের প্রধান দুই দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র একাধিক প্রার্থী মাঠে রয়েছেন।
এলাকা ঘুরে জানা যায়, হোমনা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচন করার জন্য মাঠে আছেন ৪ জন প্রার্থী এ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান মোল্লা, এ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ হারুন মিয়া ও আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আবদুল জলিল।
সংরক্ষিত কাউন্সিলার মহিলা পদে নির্বাচনে করার জন্য বাড়ী বাড়ী গিয়ে মাঠ সরগরম করছেন ৮ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে রয়েছেন ১,২,৩নং ওয়ার্ডের মনিরা বেগম, রাশিদা বেগম, মাসুদা বেগম, পিয়ারা বেগম, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডের হালিমা বেগম, শাহনাজ আক্তার স্বপ্না, মিলনের নেছা, ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের ফাতেমা বেগম।
কাউন্সিলার পুরুষ পদে নির্বাচনে প্রার্থীতা বহাল রাখার জন্য মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন ১নং ওয়ার্ডের আনোয়ার হোসেন, রেজাউল হক সরকার, ২নং ওয়ার্ডের দুলাল মিয়া, আবদুস সালাম, সুরেশ দাস, আবুল হোসেন, আঃ লতিফ, আবদুল আউয়াল,.মোশারফ হোসেন, ৩নং ওয়ার্ডের জালাল বাহার, আবুল হাসেম, জাকির হোসেন, ওয়ারিশ মিয়া, জিয়াউল হক, রাজ মিয়া, মজিবুর রহমান, ৪নং ওয়ার্ডের আঃ বাতেন, মানিক মিয়া, ৫নং ওয়ার্ডের বজলুর রহমান, আনিছুর রহমান, হারুন-অর-রশিদ, শাহিবুজ্জামান খোকন, ওমর ফারুক, ৬নং ওয়ার্ডের তারা মিয়া, মোয়াজ্জেম হোসেন সরকার, মঙ্গল মিয়া, জহিরুল ইসলাম সরকার, ৭নং ওয়ার্ডের আবুল কাশেম, সিরাজ মিয়া, কবির হোসেন, ইউনুছ মিয়া, আক্তার হোসেন, ছবির হোসেন, কামাল হোসেন জামাল, সুলতান আহমেদ, ৮নং ওয়ার্ডের আঃ কাদির, সুবেদ আলী, আঃ বাতেন, বজলুর রহমান, দাদন মিয়া, কামাল হোসেন, ৯নং ওয়ার্ডের আঃ বাতেন, আবুল হোসেন, লাক মিয়া, দেলোয়ার হোসেন ও মনোয়ার হোসেন।
বিভিন্ন প্রার্থী ও ভোটারের সাথে আলোচনা করে জানা যায়, ২০০২ সালে হোমনা পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হলেও পৌর প্রশাসক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। বিভিন্ন জটিলতা ও মামলা মোকদ্দমাসহ সীমানা নির্ধারণের কারণে পৌরসভা নির্বাচন বিঘ্নিত হয়। তাই পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ায় পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের প্রায় ১৬ হাজার ৩৪২ জন ভোটারের মাঝে বিরাজ করছে অনেক আশা। তবে সেনা মোতায়েন না হলে ভোট কারচুপি ও সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে এমনটাই অভিজ্ঞ মহলের ধারনা।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply