নাঙ্গলকোট পৌরসভার মেয়র প্রার্থীদের জোর তৎপরতা

জামাল উদ্দিন স্বপন :

নাঙ্গলকোট পৌরসভায় ১ম বারের মত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে সারাদেশের ন্যায় আগামী বছরের ১৮ জানুয়ারী নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছেন। নির্বাচনকে ঘিরে পৌরবাসির মধ্যে আলাদা উচ্ছ্বাস পরিলিক্ষিত হচ্ছে। হঠাৎ করে নির্বাচনের তারিখ ঘোষিত হওয়ায় রাজনৈতিক দলগুলোর সম্ভাব্য মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরা নড়ে-চড়ে বসেছেন। প্রার্থীরা তাদের অনুসারী নেতাকর্মীদের নিয়ে জন সংযোগের প্রাথমিক আলোচনা ও শুরু করে দিয়েছেন। দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করার জন্য প্রার্থীরা কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিকট দৌড়-ঝাঁপ ও শুরু করেছেন। পৌরসভার সর্বত্র আলোচনার টেবিলে পৌর নির্বাচন মূখ্য আলোচনায় পরিণত হয়েছে। ছোট চায়ের স্টল থেকে শুরু করে হোটেল, মুদি দোকান, হার্ডওয়্যার দোকান,্ ঔষধ দোকান সহ কোথায় নেই নির্বাচনের আলোচনা। ভোটাররা সম্ভাব্য বিভিন্ন প্রার্থীর ভালো-মন্দ চুলচেরা বিশ্লেষণ শুরু করেছেন। তারা অধীর আগ্রহে রাজনৈতিক দলগুলোর চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের জন্য অপেক্ষা করছেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা ও এ ব্যাপারে সর্তক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন।
পৌরসভার নির্বাচন রাজনৈতিক দল গুলোর কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে জোটবদ্ধভাবে নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা যায়। আওয়ামীলীগ ইতিমধ্যে মহাজোটের পক্ষ থেকে প্রার্থীর মনোনয়ন দেয়ার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণা দিয়েছেন। অন্য দিকে, বি এন পির নেতৃত্বাধীন চার দলীয় ঐক্য জোটের পক্ষ থেকে প্রার্থী মনোনয়নে এখনো আনুষ্ঠনিক ঘোষণা প্রদান না করলে ও শেষ পর্যন্ত জোটবদ্ধ ভাবে নির্বাচন সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা যায়।
নাঙ্গলকোটে আওয়ামীলীগের মধ্যে দলীয় কোন্দল না থাকলে ও একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী পৌর মেয়র পদে নির্বাচন করার ঘোষণা প্রদান করেছেন। তারা হলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ত্যাগী নেতা ভিপি হুমায়ন কবির, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সামছুদ্দীন কালু, সাবেক সংসদ সদস্য বিশিষ্ট মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ এ.কে.এম. কামারুজ্জামানের. যোগ্য উত্তর সূরী জামান’স ক্লিনিকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম মনিরুজ্জামান খাঁন, আওয়ামীলীগ নেতা, মানবাধিকার কর্মী, রফিকুল হায়দার মজুমদার, নাঙ্গলকোট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক ফজলুল হক মজুমদার ,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সদস্য সচিব অধ্যাপক জাকির হোসেন।
অন্যদিকে বিশিষ্ট সমাজ-সেবক নুরুল আফছার নয়নও পৌর মেয়র পদে নির্বাচন করার ঘোষণা প্রদান করেছেন। এদিকে উপজেলা বি.এন.পির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তৌহিদুর রহমান মজুমদার ও পৌর মেয়র পদে নির্বাচন করার ঘোষণা প্রদান করেছেন।
নাঙ্গলকোট উপজেলা বি.এন.পির দু’গ্র“পের মধ্যে প্রকাশ্যে দ্বন্ধ রয়েছে। কুমিল্লা জেলা বি.এন.পির উপদেষ্টা সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল গফুর ভূইয়া গ্র“প থেকে চুড়ান্ত ভাবে পৌর মেয়র পদের কারো নাম ঘোষণা করা হয়নি। বি.এন.পির অপর গ্র“প উপজেলা বি.এন.পি সভাপতি মোবাশ্বর আলম ভূইয়া গ্র“প থেকে পৌরসভা বি.এন.পি সভাপতি নুরুল আমিন জসিম এবং উপজেলা যুবদল সভাপতি আনোয়ার হোসেন ছোট নয়ন নির্বাচন করার ঘোষণা প্রদান করেছেন। আওয়ামীলীগের শরীক দল জাতীয় পার্টির উপজেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী জামাল উদ্দীন ও নির্বাচন করার ঘোষণা প্রদান করেছেন।
বি.এন.পির শরীকদল, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী থেকে ও নির্বাচন করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। জামায়াতে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা হচ্ছে ,উপজেলা জামায়াতে ইসলামী নায়েবে আমীর মাষ্টার আবদুল করিম, পৌরসভা জামায়াতে ইসলামী আমীর মাওঃ শাহাবুদ্দীন মজুমদার।
নাঙ্গলকোট পৌরসভার মেয়র এবং কাউন্সিলরদের মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ১৯ ডিসেম্বর। মনোনয়ন পত্র বাছাই ২২ ও ২৩ ডিসেম্বর এবং প্রার্থীতার প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২ জানুয়ারী। নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, নাঙ্গলকোট পৌরসভা মোট ২১টি গ্রাম নিয়ে ঘটিত। ওয়ার্ড রয়েছে মোট ৯টি। ভোটার সংখ্যায় নতুন হালনাগাদ তালিকায় পুরুষ ৫শ ৩৫ এবং মহিলা ২শ ৭৮জন সহ মোট ভোটার হচ্ছে ১৩ হাজার ৮শ ৯৬ জন।
ওয়ার্ড ভিত্তিক ১নং ওয়ার্ড বেতাগাঁও পুরুষ ৩শ ৭৪জন, মহিলা ৪শ ৪৬ জন। শ্রীহাস্য পুরুষ ২শ ১৬ জন, মহিলা ২শ ৪০ জন। আতাকরা পুরুষ ১শ ২০জন , মহিলা ১শ ৫৯জন। ২নং ওয়ার্ড দৌলতপুর পুরুষ ১শ ৭৮ জন, মহিলা ২শ জন।নাওগোদা পুরুষ ৪শ ১৪জন,মহিলা ৪শ ৯৯জন। ৩নং ওয়ার্ড গোত্রশাল পশ্চিমাংশ পুরুষ ১শ ৮৩ জন , মহিলা ১শ ৯৫ জন। পূর্বদৈয়ারা পুরুষ ২শ ৫৬ জন, মহিলা ৩শ ৮৪জন। হরিপুর পশ্চিমাংশ পুরুষ ৬শ ২০জন, মহিলা ৬শ ৪৫জন। ৪নং ওয়ার্ড হরিপুর পূর্বাংশ পুরুষ ৫শ ৯৮ জন, মহিলা ৬শ ৫২জন। ৫নং ওয়ার্ড চৌঘুরী পুরুষ ৩শ ৩৪জন, মহিলা ৪শ ৫জন। দাউদপুর পুরুষ ৩শ ৯৭জন, মহিলা ৪শ ৯৪জন। ৬নং ওয়ার্ড গোত্রশাল পূর্বাংশ পুরুষ ১শ ৭৩জন, মহিলা ১শ ৯৯জন। নাঙ্গলকোট পুরুষ ৩শ ১১জন,মহিলা ৩শ ৬৮জন। অশ্বদিয়া পুরুষ ১শ ৬০জন, মহিলা ১শ ৯৮জন। ৭নং ওয়ার্ড কেন্দ্রা পুরুষ ১শ ৮০জন,মহিলা ১শ ৯০জন। মান্দ্রা পুরুষ ২শ ৩৮জন, মহিলা ২শ ৭৫জন। জোড়পুকুরিয়া পুরুষ ১শ ৪জন,মহিলা ১শ ৫৪। ৮নং ওয়ার্ড বিষরা পুরুষ ১শ ৯৩জন,মহিলা ২শ ২৯জন। শ্রীকান্তা পুরুষ ১শ ৮১জন,মহিলা ২শ ৪০জন। ৯নং ওয়ার্ড বাতুপাড়া পুরুষ ৪শ ৮৯জন,মহিলা ৫শ ৩৬জন। ধাতিশ্বর পুরুষ ২শ ৬৫জন, মহিলা ২শ ৯১জন।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply