হরতালে থমথমে ঢাকা সহ সারাদেশ : মুখোমুখি সরকার ও বিরুধী দল

এস জে উজ্জ্বল :

মঙ্গলবার বিএনপির হরতালকে সামনে রেখে রাজধানীতে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। সোমবার বিকালের পর থেকে খুব দ্রুতই ফাঁকা হয়ে যেতে থাকে রাজধানীর রাস্তাঘাট। রাত বারটা অব্দি রাজধানির প্রায় সব রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে যায় । হরতালের সমর্থনে বিরুধী দলের নেতা কর্মীরা সারাদিন হরতাল সফল করতে প্রস্তুতি নিতে দেখা গেছে । হরতাল প্রতিরুধে সরকারও ব্যপক প্রচারনা চালিয়েছে ।

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় সোমবার রাতে ১১টি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশ বহনের একটি পিক আপও রয়েছে। আগুন দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা, উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ও শাহবাগ মোড়ে কমপক্ষে সাতটি হাতবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে টিএসসি চত্বরে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিএনপির ডাকা আগামিকালের হরতালকে সামনে রেখে ঘটনাগুলো ঘটছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

সন্ধ্যার পর থেকেই রাজধানীর সব জায়গায় অতিরিক্ত পুলিশি টহল শুরু করেছে। পাশাপাশি র‌্যাব ও ডিবি পুলিশের টহলও বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া নয়াপল্টন বিএনপি অফিস সংলগ্ন এলাকা, পুরানা পল্টন মোড়, বায়তুল মোকাররমের উত্তর ও দক্ষিণ গেট, প্রেসক্লাব সংলগ্ন সড়ক মোড়সমূহ,মগবাজার, কমলাপুর রেলস্টেশন, জিরো পয়েন্ট ও মহাখালী মোড়ে দাঙ্গা পুলিশকে অবস্থান নিতে দেখা গেছে।

এদিকে রাত ১০টায় নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেন, যে কোনো সময় পুলিশ কেন্দ্রী কার্যালয়ে ঢুকে দমন-নিপীড়ন চালাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছি ।দলীয় অফিসে ঢুকতে গেলে বা বের হতে হলে পুলিশের হাতে আটক হতে হচ্ছে।’
রিজভী বলেন, সন্ধ্যার পর বিএনপির কার্যালয় থেকে বের হবার সময় যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আখম মোজাম্মেল হকসহ ২০জনকে আটক করা হয়েছে। ‘পাশের রেস্টুরেন্ট থেকে আমাদের চা দিয়ে ফিরে যাওয়ার সময় হোটেল বয়কেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে’ জানিয়ে তিনি বলেন, সারা দেশে ১৩শতাধিক বিএনপি কর্মীদের আটক করা হয়েছে। সরকারি দলের ক্যাডার ও পুলিশের যৌথ হামলায় ৫শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। এছাড়াও বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিয়েও হয়রানি করা হচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

এদিকে সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পুলিশের একটি দল রাজধানীর মগবাজারস্থ জামাতের কার্যালয়ে প্রবেশ করে। এসময় তারা বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশি চালায়। এ অভিযানে কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি বলে জানা গেছে। রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিবলী নোমান জানান, মূলত পুলিশের গোয়েন্দা শাখা এ অভিযান পরিচালনা করেছে। থানা পুলিশ তাদের সঙ্গে ছিল।

রাজারবাগ পুলিশ লাইন সূত্রে জানা গেছে বিএনপির ডাকা হরতালে রাজধানীতে পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা ও আনসার বাহিনীর প্রায় ১২ হাজার সদস্য মোতায়েন করা হবে। রাজধানীতে হরতালকারীরা যাতে কোন রকম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে তা নিশ্চিত করা হবে।

বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘হরতাল ও নাশকতামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টা’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, হরতালে কোন প্রকার অরাজকতা সহ্য করা হবে না , অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করা হলে হরতালে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপশি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও মাঠে থাকবে।

দেশের বিভিন্ন স্হান থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে হরতালের সমর্থনে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনগুলো বেন তৎপর রয়েছে । পাশাপাশি সরকারি দলের কর্মীরাও হরতাল বিরুধী মিছিল মিটিং করেছে । তবে মোটামোটি সারাদেশে হরতাল খুব জোরে সোরেই পালন হবে বলে সাধারন মানুষের অভিমত । আবার হরতালে ব্যপক ক্ষয় ক্ষতির আশংকাও করছের কেউ কেউ ।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply