ঢাকা চট্রগ্রাম রুটে তীব্র যানযট : ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের চড়ম দুর্ভোগ

কুমিল্লা, ১৬ নভেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রাজধানীর যাত্রাবাড়ি চৌরাস্তা থেকে নারায়ণগঞ্জের কাচঁপুর ব্রিজের পশ্চিম পাড় পর্যন্ত মঙ্গলবার ভোর হতে র্দীঘ ১৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। যানজটের কারণে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তবে ঢাকা থেকে বের হওয়ার পথে যানজট থাকলেও ঢাকায় প্রবেশের পথ ছিল স্বাভাবিক। পুলিশের দাবি, যানজট কিছুটা কমে আসছে। থেমে থেমে যানবাহন চলাচল করছে।

জানা গেছে, কাঁচপুর পয়েন্ট দিয়ে ঢাকা -চট্রগ্রাম, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ৩২টি জেলার কয়েক হাজার যানবাহন চলাচল করে। যানজটের কারণে যাত্রাবাড়ি, শনির আখড়া, চিটাগাংরোডসহ বিভিন্ন বাস স্ট্যান্ডে হাজার হাজার যাত্রী বাসের অপেক্ষায় বসে আছে। অতিরিক্ত যাত্রি ও তুলনামূলকভাবে বাস কম থাকায় যাত্রীরা অনেকটা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের ছাদে ও ট্রাকে করে বাড়ি ফিরছেন।

যাত্রীদের অভিযোগ, ঈদের সুযোগে বাসের হেলপার, কন্ট্রাক্টররা নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৩/৪ গুণ বেশি ভাড়া দাবি করছে। ফলে বাধ্য হয়েই যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়াগুনে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে গন্তব্যে ফিরছেন।

যাত্রীবাড়ি-গুলিস্তান ফ্লাইওভার নির্মাণ, সায়দাবাদবাস স্ট্যান্ড এলাকায় গাড়ি এলাপাতাড়ি ভাবে রাখা, যাত্রাবাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে রাস্তার ওপর বাস থামিয়ে যাত্রী উঠা নামা করা ও ঈদে ঘরমুখো মানুষের অতিরিক্ত চাপের কারণে এ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে বলে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ জানায়।

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার রাতে ঢাকা প্রবেশের পথে কাচঁপুর ব্রীজ থেকে যাত্রাবাড়ি পর্যন্ত তীব্র যানজট ছিল। পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ ও কমিউনিটি পুলিশের সহায়তায় ভোর চারটার দিকে সে যানজট নিরসন করা হয়।ঃঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রাজধানীর যাত্রাবাড়ি চৌরাস্তা থেকে নারায়ণগঞ্জের কাচঁপুর ব্রিজের পশ্চিম পাড় পর্যন্ত মঙ্গলবার ভোর হতে র্দীঘ ১৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। যানজটের কারণে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তবে ঢাকা থেকে বের হওয়ার পথে যানজট থাকলেও ঢাকায় প্রবেশের পথ ছিল স্বাভাবিক। পুলিশের দাবি, যানজট কিছুটা কমে আসছে। থেমে থেমে যানবাহন চলাচল করছে।

জানা গেছে, কাঁচপুর পয়েন্ট দিয়ে ঢাকা -চট্রগ্রাম, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ৩২টি জেলার কয়েক হাজার যানবাহন চলাচল করে। যানজটের কারণে যাত্রাবাড়ি, শনির আখড়া, চিটাগাংরোডসহ বিভিন্ন বাস স্ট্যান্ডে হাজার হাজার যাত্রী বাসের অপেক্ষায় বসে আছে। অতিরিক্ত যাত্রি ও তুলনামূলকভাবে বাস কম থাকায় যাত্রীরা অনেকটা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের ছাদে ও ট্রাকে করে বাড়ি ফিরছেন।

যাত্রীদের অভিযোগ, ঈদের সুযোগে বাসের হেলপার, কন্ট্রাক্টররা নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৩/৪ গুণ বেশি ভাড়া দাবি করছে। ফলে বাধ্য হয়েই যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়াগুনে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে গন্তব্যে ফিরছেন।

যাত্রীবাড়ি-গুলিস্তান ফ্লাইওভার নির্মাণ, সায়দাবাদবাস স্ট্যান্ড এলাকায় গাড়ি এলাপাতাড়ি ভাবে রাখা, যাত্রাবাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে রাস্তার ওপর বাস থামিয়ে যাত্রী উঠা নামা করা ও ঈদে ঘরমুখো মানুষের অতিরিক্ত চাপের কারণে এ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে বলে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ জানায়।

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার রাতে ঢাকা প্রবেশের পথে কাচঁপুর ব্রীজ থেকে যাত্রাবাড়ি পর্যন্ত তীব্র যানজট ছিল। পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ ও কমিউনিটি পুলিশের সহায়তায় ভোর চারটার দিকে সে যানজট নিরসন করা হয়।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply