মুরাদনগরে স্কুল ছাত্রীকে পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতন চালিয়ে হত্যা

মো. হাবিবুর রহমান,স্টাফ রিপোর্টার :

নিহত স্কুল ছাত্রী জোবেদা আক্তার
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা পশ্চিম ইউনিয়নের কালিপুরা গ্রামে চতুর্থ শ্রেনীর মেধাবী স্কুল ছাত্রী জোবেদা আক্তারকে (১৩) পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ মঙ্গলবার দুপুরে ওই স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে। এ ব্যাপারে মামলা হলে পুলিশ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।
পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, ২০০২ সালে যাত্রাপুর গ্রামের হারুনুর রশীদের মেয়ে নাছিমা আক্তারকে কালিপুরা গ্রামের মৃত কেনু মুন্সীর ছেলে শাহ আলম মুন্সীর সাথে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী শাহ আলম মুন্সী জীবিকা নির্বাহের জন্য মালয়েশিয়ায় থাকাকালে জমি সংক্রান্ত ও টাকা পয়সার লেনদেন নিয়ে স্ত্রী নাছিমা আক্তারের সাথে প্রায়ই ভাসুর গ্রাম পুলিশ গোলাম মোস্তফা (৪০), মোশারফ হোসেন (৩৬) ও স্বামীর বোন পারভীন আক্তারের (৩০) মনোমালিন্য ও ঝগড়া হতো বলে নাছিমা আক্তারের ভাই ওয়াসিম মিয়া জানান। নাছিমা আক্তার ঘরে একা থাকে বিধায় জীবনের নিরাপত্তা কথা ভেবে ছোট বোন জোবেদা আক্তারকে ৬ বছর ধরে তার সাথে রাখছেন। এরই মধ্যে তাকে কালিপুরা রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। ছাত্রী হিসেবে জোবেদা আক্তার অত্যন্ত মেধাবী বলে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইকরাম হোসেন জানিয়েছেন। নাছিমা আক্তারের স্বামী শাহ আলম মুন্সী দেশে ফেরার কথা থাকায় তার ছোট বোন জোবেদা আক্তারকে ভাসুর গ্রাম পুলিশ গোলাম মোস্তফার মেয়ে ছালমা আক্তারকে (১২) গত সোমবার রাতে থাকার জন্য বলে বাবার বাড়ি যাত্রাপুরে চলে যায়। খালি ঘর পেয়ে দুর্বৃত্তরা জোবেদা আক্তারকে পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতন চালিয়ে হত্যার পর বাড়ীর পাশের পুকুর পাড়ের নিচে ফেলে রাখে। নাছিমা আক্তার মঙ্গলবার ভোর রাতে স্বামী শাহ আলমকে আনার জন্য ঢাকা বিমান বন্দর যাওয়ার পথে বোনের মৃত্যুর খবর শুনে ইলিয়টগঞ্জ থেকে বাড়িতে ফিরে আসেন। স্কুল ছাত্রী জোবেদা আক্তারের মৃত্যুর খবর পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছেঁ ময়না তদন্তের জন্য লাশ থানায় নিয়ে আসে। সুরতহাল রিপোর্টে নিহতের মাথায়, বুকে, গলায়, ডান চোখে ও মুখমন্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চি‎হ্ন রয়েছে বলে এস আই নুরুল ইসলাম জানান। তার মৃত্যুর খবর শুনে আত্মীয়-স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ ভারি হয়ে উঠে। শোকে মাতম করতে করতে মা আনোয়ারা বেগম বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন।
মর্মান্তিক এ মেধাবী স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তাকে এক নজর দেখার জন্য স্কুলের সহপাঠী ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও এলাকার হাজার হাজার লোক ভীড় জমায়। এলাকাবাসী নির্মম এ পৈশাচিক হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি করে। এ ব্যাপারে নিহত স্কুল ছাত্রী জোবেদা আক্তারের বাবা যাত্রাপুর গ্রামের হারুনুর রশীদ বাদী হয়ে ৫ জনের বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় একটি হত্যা মামলা (নং-০৯, তারিখ-০৯/১১/১০ইং, ধারা-৩০২/৩৪ বা: দ: বি:) দায়ের করেছেন। মুরাদনগর থানার ওসি (তদন্ত) ইকবাল হোসেন জানান, আসামীরা পলাতক থাকায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি, তবে তাদেরকে খুঁজে বের করে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Check Also

দেবিদ্বারের সাবেক চেয়ারম্যান করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় মৃত্যু: কঠোর নিরাপত্তায় গ্রামের বাড়িতে লাশ দাফন

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ভাণী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান (৫৫) করোনায় আক্রান্ত ...

Leave a Reply