মেধাবী ছাত্রী আতিকাকে বাঁচাতে কেউ কি এগিয়ে আসবেন !


এম আহসান হাবীব, কুবি প্রতিনিধি :
আতিকা আয়েশা। ব্রাহ্মনবাড়িয়া গভর্নমেন্ট গার্লস হাই স্কুলের নবম শ্রেণীর বিজ্ঞান বিভাগের প্রথম স্থান অধিকারী মেধাবী ছাত্রী। তাঁর পিতা ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলা সদরের মহাদেবপট্টির মোহাম্মদ সোলায়মান একজন ক্ষুদ্র পুস্তক ব্যবসায়ী। তিন ভাই-বোনের মধ্যে দ্বিতীয় আতিকা বড় হয়ে ডাক্তার হতে চায় । কারণ ডাক্তার হলে একদিকে যেমন বাবা-মার মুখ উজ্জল হবে অন্যদিকে সাধারন মানুষদের সেবা করতে পারবে। কিন্তু অন্যের সেবায় আত্মনিয়োগে আগ্রহী অদম্য মেধাবী আতিকা আজ নিজেই সক্ষম-স্বচ্ছল মানুষদের সেবা ও ভালবাসার বড় বেশি কাঙাল। কারন, মাত্র পনের বছর বয়সেই তাঁর স্বপ্নোজ্জ্বল পথচলা চিরতরে থামিয়ে দিতে তাঁর শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি ব্লাড ক্যান্সার (লিউকেমিয়া)। যে মেয়েটির আজ ভবিষ্যত গড়তে ব্যস্ত থাকার কথা ক্লাসের হোমওয়ার্ক নিয়ে কিংবা স্কুল আঙ্গিনায় বন্ধু-বান্ধবীদের উচ্ছ্বল আড্ডায়, সে আজ হাসপাতালের বেডে শুয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে । বর্তমানে বাংলাদেশের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ এম এ খানের অধীনে ঢাকা মেডিকেল কলেজের হেমাটোলজী বিভাগে চিকিৎসাধীন নিষ্পাপ কিশোরী আতিকা। প্রিয় সন্তানের চিকিৎসার জন্য জীবনের সকল উপার্জনই ইতিমধ্যে ব্যয় করেছেন তাঁর বাবা। বর্তমানে তাঁর চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন, প্রয়োজন পর্যাপ্ত “এবি নেগেটিভ” রক্তের। চিকিৎসার জন্য টাকার অঙ্কটা গণনার হিসাবে অনেক বড় হলেও আমাদের দেশে এমন অনেক ধনাঢ্য ব্যাক্তি রয়েছেন যাদের সামান্য সদিচ্ছা, সহানুভূতি ও মানবিকতা বাঁচিয়ে দিতে পারে আতিকার প্রিয় জীবন, পূরণ করতে পারে তাঁর স্বপ্ন। এই সমাজের সকল হৃদয়বান মানুষের কাছে আতিকার আজ একটাই আকুতি, “আমি বাঁচতে চাই, প্লিজ আমাকে বাঁচান”। এই দেশের সাড়ে ষোল কোটি মানুষের মধ্যে পঞ্চাশ হাজার মানুষও যদি সামান্য অর্থসাহায্য আতিকার জন্য বাড়িয়ে দেন তাহলেই হয়তো বেঁচে যেতে পারে আতিকা। আতিকার জন্য সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : মোহাম্মদ সোলায়মান, চলতি হিসাব নং- ১৫৬৯, উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড, বি-বাড়ীয়া শাখা। জরুরি তথ্যের জন্য যোগাযোগ করা যাবে ০১৯২২-৭৩৮৯৪৯ নাম্বারে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply