রক্তের বিনিময়ে হলেও স্বৈরাচার সরকারকে হটানো হবে : খালেদা জিয়া


নিউজ ডেস্ক, ১১ অক্টোবর (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :
বিএনপি চেয়ারপারসন ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আমাদের রক্ত তো এমনিতেই ঝরছে। আমরা জানি, আরো রক্ত ঝরাতে হবে। তবুও জেহাদের আদর্শ সামনে রেখে গণতন্ত্রের নামধারী স্বৈরাচারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে।’‘দরকার হলে আরও কিছু রক্তক্ষয় হবে। আমরা আগেও স্বৈরাচারী সরকার হটিয়েছি।’‘দেশের কোনো কিছুই ঠিক মতো চলছে না। ব্যর্থ সরকারকে হটাতে ছাত্রসমাজকে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে হবে। আমরা যে কর্মসূচি দেব, তাতে তোমরা শরিক হবে।’
সোমবার বিকালে সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদে ছাত্র-গণজমায়েতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। জনবিরোধী সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর জনগণের অধিকার ও গণতন্ত্র ফিরে আসবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
খালেদা জিয়া বলেন, তারা নিজেরাই নিজেদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। এর কারণ দলের নেতৃত্বে যারা আছে তারা অসৎ, দুর্নীতিবাজ।’ বিনা টেন্ডারে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের জন্য নতুন যে আইন করা হয়েছে সরকার পরিবর্তন হলে সে আইনও পরিবর্তন হয়ে যাবে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এ অন্যায় কাজে যেসব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী সহযোগিতা করবে তারাও পার পাবে না। যারা এ অন্যায় কাজে সহযোগিতা করবে তাদেরও বিচার করা হবে।’
তিনি বলেন, ‘এ সরকার ক্ষমতায় এসেছিল তিনটি ওয়াদা নিয়ে। তারা বলেছিল ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে, ঘরে ঘরে চাকরি দেবে ও বিনা পয়সায় সার বিতরণ করবে। কিন্তু তারা তাদের ওয়াদা পুরণ করেনি। বরং ডিজিটাল দেশ গড়ার কথা বলে ক্ষমতায় এসে হত্যা, গুম, নির্যাতন, ধর্ষণ, মিথ্যা মামলা দায়ের ও নির্যাতন চালাচ্ছে।’
ছাত্রদের উদ্দেশ্য করে বেগম জিয়া বলেন, ছাত্র-গণ জমায়েত শুরুর আগে দিনাজপুর থেকে আসা একটি আন্তঃনগর ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের ছাত্রদলকর্মী দাবি করে এ ঘটনার জন্য সরকারকে অভিযুক্ত করেন বেগম জিয়া। বিএনপির চেয়ারপারসন ছাত্র-জমায়েতে অভিযোগ করে বলেছেন, সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে তাঁর সমাবেশস্থলের কাছে ট্রেন-দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে। দুর্ঘটনা ঘটিয়ে সরকার আজকের সমাবেশ পণ্ড করার চেষ্টা চালিয়েছে। উল্লেখ্য বিকেল তিনটা পাঁচ মিনিটে সভামঞ্চ থেকে মাত্র ৩০ গজ দূরে দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী আন্তনগর ট্রেনে কাটা পড়ে পাঁচজনের মৃত্যু হয়।
বিকেল চারটা ৩৫ মিনিট থেকে পাঁচটা ১৫ মিনিট পর্যন্ত প্রায় ৪০ মিনিটের ভাষণে সরকারের নানা সমালোচনা করে তিনি জনগণকে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি ভাষণে নিহত ব্যক্তিদের প্রতি গভীর শোক ও শ্রদ্ধা জানান।
সমাবেশে সভাপতির ভাষণে ছাত্রদল সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু অভিযোগ করেন, সমাবেশের জন্য অনুমতি নেওয়ার সময় রেল-কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল বেলা দুইটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ রেলপথে কোনো ট্রেন চলবে না। তিনি প্রশ্ন তোলেন, ট্রেন কেন তিনটার দিকে ওই পথ দিয়ে গেল? তিনি অভিযোগ করেন, সরকার ষড়যন্ত্র করে বিএনপির সমাবেশস্থলের কাছে ট্রেন-দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে।
বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার উপপরিদর্শক মো. জিলানী জানান, ঘটনাস্থলে একজনের লাশ পড়ে ছিল। বাকি চারজন সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে মারা গেছেন বলে হাসপাতাল সূত্র তাঁদের নিশ্চিত করেছে। তাত্ক্ষণিকভাবে নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় জানা যায়নি। রায়গঞ্জ থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনার পর উপস্থিত জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে ট্রেনের ইঞ্জিন ও বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ভাঙচুর করে।
ছাত্র গণজমায়েতের সমাবেশের পর নাটোরে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের হামলায় নিহত বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ নূর বাবুর বাসায় যান বেগম খালেদা জিয়া। সোমবার সন্ধ্যা সাতটার কিছু আগে বাবুর বাসায় পৌঁছান খালেদা জিয়া। তাকে পেয়েই কান্নায় ভেঙে পড়ে বাবুর পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনরা। এসময় সেখানে সৃষ্টি হয় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের। কান্নার রোলে ভারী হয়ে ওঠে বাতাস।

পরিবারের সদস্যরা জানান, বাসাটির মালিক বাবু নন, সরকার। উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে বাসাটি বরাদ্দ পেয়েছিলেন বাবু। নিজের কোনো বাসা বা বাড়ি নেই তার। তাই তার মৃত্যুতে তার পরিবার পড়েছে অথই সাগরে। খালেদা জিয়া আসছেন শুনে আশপাশের এলাকা থেকে হাজার হাজার নারী-পুরুষ এসে ভিড় জমায় বাসাটিতে। বেগম জিয়া নিহত বাবুর স্ত্রী ও সন্তানদের সমবেদনা জানান। তাদের আশ্বস্ত করে বেগম জিয়া বলেন, সব সময় তিনি তাদের পাশে থাকবেন। এ সময় বেগম জিয়ার সঙ্গে দলের কেন্দ্রীয় ও রাজশাহী বিভাগীয় সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply