ডি ভি আবেদন শুরু মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে


অভিজিত রায় :
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর ২০১২ সালের জন্য ডাইভারসিটি ভিসা (ডিভি-২০১২) লটারি কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। অনলাইনে নিবন্ধন শুরু হবে ৫ অক্টোবর, ২০১০ রোজ মঙ্গলবার থেকে। রাজধানী ঢাকার কারওয়ান বাজারে অবস্থিত যাত্রী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে রবিবার মার্কিন দূতাবাসের কনস্যুলার সেকশনের প্রধান সান্ড্রা ইনগ্রাম এ তথ্য জানান। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ঘোষণা অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা থেকে শুরু হবে নিবন্ধন প্রক্রিয়া। আগামী ৩ নভেম্বর রাত ১০টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করা যাবে। আর ২০১১ সালের ১ মে থেকে স্টেট ডিপার্টমেন্টের ওয়েবসাইটে লটারির ফলাফল দেখা যাবে।
অনলাইনে আবেদনের জন্য http://www.dvlottery.state.gov ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করতে হবে। এবার আবেদনের জন্য সময় পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৩০ দিন।
তবে আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়সীমা পর্যন্ত অপেক্ষা না করার পরামর্শ দিয়ে সান্ড্রা ইনগ্রাম বলেছেন, “নিবন্ধনের শেষ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করলে আবেদনের অতিরিক্ত চাপের কারণে অনলাইনে আবেদন গ্রহণের গতি ধীর হয়ে যেতে পারে।”
ডিভি প্রোগ্রাম হিসাবে অধিক পরিচিত ডাইভার্সিটি ভিসা প্রোগ্রামের আওতায় যুক্তরাষ্ট্রে যে সব দেশের অভিবাসী কম সে সব দেশ থেকে প্রতি বছর ৫০,০০০ জনকে স্থায়ী রেসিডেন্ট ভিসা দেওয়া হয়। এই প্রোগ্রামের আওতায় এ পর্যন্ত ৩৯,০০০ বাংলাদেশি যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হয়েছেন।
কোনো দেশকে মোট ভিসার সাত শতাংশের বেশি ভিসা দেওয়া হবে না। অর্থাৎ এ বছর সর্বোচ্চ ৩,৫০০ বাংলাদেশি এই প্রোগ্রামের আওতায় ভিসা পেতে পারেন। ডি ভি আবেদন ইন্টারনেটে স্পম্পূর্ণ ফ্রি করা যায়। কিন্তু কিছু আসাধু ব্যবসায়ী বাংলাদেশে অনভিজ্ঞ লোকদের সরলতার সুযোগ নিয়ে ব্যবসা শুরু করে দেয়। এইসব ব্যক্তিদের থেকে সবাইকে সাবধান থাকার কথাও বলা হচ্ছে।
মার্কিন দূতাবাসের ওয়েবসাইটে তথ্যানুযায়ী, আবেদনকারীকে অবশ্যই এইচএসসি পাস অথবা পেশাগত যোগ্যতা প্রমাণ করতে হবে। তবে পেশাগত যোগ্যতা দিয়ে ভিসা পাওয়া এবার খুব একটা সহজ হবে না। নিয়ম অনুযায় আবেদনের সঙ্গে অবশ্যই সম্প্রতি তোলা সাদা ব্যাকগ্রাউন্ডের রঙিন ছবি দিতে হবে। পুরনো ছবি দিয়ে আবেদনকারীকে শনাক্ত করা সহজ না হওয়ায় তা বাতিল হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। এছাড়া স্বামী বা স্ত্রী এবং ২১ বছরের কম বয়সী অবিবাহিত সন্তানের নামও আবেদনে অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে। যদি এমন হয় যে, তারা ভিসা পেলেও যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন না তারপরও তাদের নাম দিতে হবে।
তাছাড়া এবার কাউকে চিঠি বা ই-মেইলের মাধ্যমে ডিভি লটারি বিজয়ের খবর জানানো হবে না। তাই অনলাইনে আবেদন করার সময় যে প্রাপ্তি স্বীকারপত্র দেয়া হবে আবেদনকারীকে তা নিজ দায়িত্বে প্রিন্ট করে রাখতে হবে। কেননা পরবর্তীতে এই প্রাপ্তি স্বীকারপত্রে থাকা নাম্বার ব্যবহার করেই ডিভি লটারির ফলসহ যেকোন তথ্য জানা যাবে।

Check Also

রিয়াদে জ্যাবের ‘অমর একুশে’ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রির্পোটার :– “অমর একুশের চেতনায় গন মানুষের মনে জেগে উঠুক উজ্জলতা উৎকৃষ্টতা” শীর্ষক আলোচনা ...

Leave a Reply