নিখুঁত কারুশিল্প আর রঙ-তুলিতে প্রাণ পাচ্ছে প্রতিমা : তিতাসে ১৩টি পূজামন্ডপ তৈরীতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা


নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
বাঙালি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে তিতাস উপজেলার ১৩টি পূজামন্ডপ তৈরীতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মৃৎশিল্পীরা। তাদের নিখুঁত কারুশিল্প আর রঙ-তলির পরশে প্রাণ ফিরে পেতে যাচ্ছেন প্রতিমা। শারদীয় দুর্গাপূজার আর মাত্র ১১দিন বাকি থাকলেও ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদ-প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বিভিন্ন পদক্ষেপ।

উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শ্রী স্বপন কুমার সূত্রধর ও সাধারণ সম্পাদক ডাঃ লনী চন্দ্র দেবনাথ জানান, গত বছর উপজেলায় ৯টি পূজামন্ডপে পূজা উদযাপন হলেও এবছর তা দাঁড়িয়েছে ১৩টিতে। এদের মধ্যে রয়েছে সাহাবৃদ্দি গ্রামে গুরুদাস ভূঁইয়া, কেসব দাস ও স্বপন মাস্টারের বাড়ীতে ৩টি, কাকিয়াখালী তুফানী দাসের বাড়ীতে ১টি, মজিদপুর রাজেন্দ্র সরকারের বাড়ীতে ১টি, পাঙ্গাসিয়া বনমালী দাসের বাড়ীতে ১টি, মাছিমপুর শচীন্দ্র রায়ের বাড়ীতে ১টি, দাসকান্দি রাষ্ট্রপতি মজুমদারের বাড়ীতে ১টি, জগতপুর ধরনী বাবুর বাড়ীতে ১টি, খানেবাড়ী গোবিন্দপুরে হরিপদ সাহা ও সুবল সাহার বাড়ীতে ২টি, রঘুনাথপুর সংকর দেবের বাড়ীতে ১টি এবং নয়ারচর কালাচান দাসের বাড়ীতে ১টি।

কলাকান্দি ইউনিয়নের মাছিমপুর শচীন্দ্র রায়ের বাড়ীতে পুজামন্ডপ ঘুরে দেখা যায়, মৃৎশিল্পীরা প্রতিমা তৈরীতে ব্যস্ত। মৃৎশিল্পী কৃষ্ণপাল জানান, একটি প্রতিমা তৈরী করতে তাদের প্রায় ১ মাস দিবা-রাত্রি কাজ করতে হয়। এক একটি প্রতিমা তৈরী করতে ৮/৯ জন কারিগর লাগে। এদিকে মাছিমপুর পুজামন্ডপের সভাপতি শ্রী শচিন্দ্র রায় ও গাজীপুর খান হাইস্কুল এন্ড কলেজে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শ্রী দিলীপ কুমার রায় জানান, একটি পূজাকে কেন্দ্র করে তাদের প্রায় ৪/৫ লাখ টাকা খরচ হয়।

এ সম্পর্কে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল ফয়সল জানান, হিন্দু সম্প্রদায়ের এই উৎসবকে কেন্দ্র করে উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় প্রতিটি পুজামন্ডপে সার্বক্ষণিক আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যগণ দায়িত্ব পালনসহ ঝুকিপূর্ণ পূজামন্ডপে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, গতকাল পর্যন্ত পুজামন্ডপের অনুকূলে কোন সরকারী বরাদ্দ পাওয়া যায়নি তবে আগামী ২-১ দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে বলে একজন কর্মকর্তা জানান।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply